রাজধানীর ভাটারায় ‘ভাগ্নে ফারুক’ গ্রুপের গুলিতে চেয়ারম্যানের বড়ভাই নিহত!

সময়ের কণ্ঠস্বর-

রাজধানীর ভাটারায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গোলাগুলিতে একজন নিহত হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম কামরুজ্জামান দুখু (৩৮)। তিনি ভাটারার বেরাইদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের বড় ভাই। আজ রবিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

কামরুজ্জামানানের বড়ভাই বাড্ডা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম এবং বেরাইদ ইউনিয়নের ‘ভাগ্নে ফারুক’ গ্রুপের মধ্যকার সংঘর্ষে তিনি গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। নিহতের লাশ এ্যাপলো হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

ওই হাসপাতালেই ভর্তি হওয়া আহতরা হলেন কামাল, তাজ, নাজিরসহ আরো ১০ জন; তাৎতক্ষণিক যাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ভাগ্নে ফারুক গ্রুপের লোকজন অস্ত্র নিয়ে জাহাঙ্গীর চেয়ারম্যানের বাড়ি ঘেরাও করে। ওই সময় ভাগ্নে ফারুক গ্রুপের লোকজন গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে কামরুজ্জামান নিহত হন।

বেরাইদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হাজি জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ করেছেন, পুলিশের উপস্থিতিতে ‘ভাগ্নে ফারুক’ তার বাড়ির সামনে গুলি চালিয়েছে। অপরদিকে ফারুক আহমেদের গ্রুপ এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

ভাটারা থানার ওসি কামরুজ্জামান জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে এলাকা শান্ত রয়েছে।

**রহমতুল্লাহ এমপির ভাগ্নে ফারুক গ্রুপের আরও আলোচিত সংবাদ **

বাড্ডায় চাঞ্চল্যকর চার খুন মামলার আসামিরা রহমতুল্লাহ এমপির ছত্রছায়ায়

Leave a Reply