ওসমানীনগরে নিয়ন্ত্রণহীন সবজী বাজার,সাধারণ মানুষ দিশেহারা

সিলেট প্রতিনিধি :
পবিত্র রমজান মাসকে কেন্দ্র করে ওসমানীনগরের বিভিন্ন বাজারে কাঁচামালের মূল্য মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

ক্রেতাদের অভিযোগ, রমজানের আগমুহূর্তে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরজমিনে ও প্রশাসন থেকে মাইকিং করে দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার নাগালে রাখতে প্রতিটা দোকানে মূল্য তালিকা সাঁটানোর অনুরোধ করা হলেও ব্যবসায়ীরা প্রশাসনকে তোয়াক্কা না করে ইচ্ছেমতো মূল্য আদায় করছে। সরজমিনে উপজেলার গোয়ালাবাজার, তাজপুর, উমরপুর কলারাই, দয়ামীর বাজারে গিয়ে দেখা যায়, রমজান শুরুর আগমুহূর্তে খোলাবাজারে ধনেপাতা দেড়শ টাকা বিক্রি হলেও বর্তমানে ৩শ, কাঁচামরিচ ২০টাকা থেকে বেড়ে থেকে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, আলু প্রতি কেজি ২০টাকা থেকে বেড়ে ২৫টাকা, করলা ৪০ থেকে ৬০টাকা, ঢেড়স ২৫ থেকে ৪০টাকা, ঝিঙ্গা ৫০ থেকে ৬০টাকা, টমেটো ৪০ থেকে ৬০টাকা, বেগুন ৩০ থেকে ৬০টাকা, গাজর ৩০ থেকে ৬০টাকা, শসা ৩০ থেকে ৬০টাকা, পটল ৪০ থেকে ৫০টাকা, লেবু (হালি) ৩০ থেকে বেড়ে ৫০/৬০ টাকাসহ শাক-সবজির দাম মাত্রাতিরিক্ত ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। যদিও পাইকারী বাজার থেকে খুচরা বাজারে মূল্যের ব্যাপক তারতম্য রয়েছে।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক তাজপুর কাঁচা বাজারের এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী বলেন, আমাদের করার কিছুই নেই। রমজানের আগ মুহূর্তে পাইকারী বাজারে মূল্য বেড়ে যাওয়ায় আমাদের অতিরিক্র দামে সবজী ক্রয় করতে হচ্ছে। ফলে ক্রেতাদের থেকে বেশি মূল্য আদায় না করে উপায় নেই।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনিছুর রহমান বলেন, এলাকার প্রতিটা বাজারের বিভিন্ন দোকান, কাঁচাবাজার ঘুরে ব্যবসায়ীদের পবিত্র রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য সীমিত রাখার অনুরোধ করেছি। তারপরও যদি কেউ আমাদের অনুরোধকে গুরুত্ব না দিয়ে অধিক মুনাফা লাভের আশায় চড়ামূল্যে বিক্রি করে তবে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।