মোবাইল ব্যবহারে বাবার ‘নিষেধ’: বাক-বিতন্ডার পর অভিমান করে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা!

সময়ের কণ্ঠস্বর, নীলফামারী- নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় মোবাইল ব্যবহারে নিষেধ করায় বাবার ওপর অভিমান করে সানজিদা আক্তার (১৮) নামে এক কলেজছাত্রী গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৭ মে) দুপুরে তাকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সানজিদা রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার লালদীঘি এলাকার আকতার হোসেনের মেয়ে। তিনি সৈয়দপুর শহরের একটি কলেজের দ্বিতীয়বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

স্বজনরা জানান, সৈয়দপুর শহরের দারুল উলুম মাদ্রাসা রোডে পরিবারসহ একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন সানজিদা। বেশকিছু দিন থেকে মোবাইল ফোন কথা বলার সময় আচরণ ও গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হয় তার বাবার।

বুধবার (১৬ মে) রাতে মোবাইল ব্যবহারে নিষেধ করায় বাবার সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় সানজিদার। এক পর্যায়ে বাবা সঙ্গে অভিমান করে সকালে সবার অজান্তে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান পাশা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।