কুষ্টিয়ায় পুলিশের সাথে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদক কারবারী নিহত

এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট :: কুষ্টিয়ায় পৃথক পৃথক কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক কারবারী নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন কুমারখালীতে ও অপরজন ভেড়ামারায় নিহত হন।

জানা যায়, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১ টার দিকে কুষ্টিয়া কুমারখালী পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ফটিক ওরফে গাফফার (৩৮) নিহত হন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয়  ‍শ্যুটারগান, এক রাউন্ড গুলি, ৭শ পিস ইয়াবা ও ৫শ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কুমারখালি থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লাহিনীপাড়া এলাকায় অভিযান চালালে একদল মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের ওপর গুলি চালায় এসময় পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থল থেকে কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে যায় এবং একজনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে এলাকাবাসী লাশটি শনাক্ত করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার পিতার নাম জানা যায়নি।

এদিকে জেলার  ভেড়ামারায় পুলিশের সঙ্গে “‘বন্দুকযুদ্ধে” শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী লিটন শেখ (৪৫) নিহত হয়েছে। পুলিশের দাবি এ ঘটনায় তাদর ১ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১টি এলজি অস্ত্র, ৩ রাউন্ড গুলি ও মাদকদ্রব্য ৫শ পিচ ইয়াবা, ২ গ্রাম হিরোইন উদ্ধার করেছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে ভেড়ামারা উপজেলার হাওয়াখালী মাঠের মধ্যে ইটভাটার কাছে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।

ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানান, মাদকদ্রব্য ক্রয় বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে একদল মাদক ব্যবসায়ী রাত ২টার দিকে উপজেলার হাওয়াখালী মাঠের মধ্যে যায়। এমন গোপন সংবাদ পেয়ে এস আই আশরাফুল ইসলাম ভেড়ামারা থানা পুলিশের একটি টহল দল নিয়ে ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।

জবাবে পুলিশ ও পাল্টা গুলি চালালে ‘বন্দুকযুদ্ধে একজন গুলিবিদ্ধ হলে তাকে উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। তার বিরুদ্ধে ভেড়ামারা থানার ৪টি মাদকের মামলা রয়েছে। নিহত লিটন (৪৫) ভেড়ামারা উপজেলার নওদাপাড়া এলাকার মৃত গোলবার শেখ এর পুত্র।