পশ্চিমবঙ্গ সফরে প্রধানমন্ত্রীর খাবার মেনুতে থাকবে না কোন মাংস

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক :: আগামী ২৪শে মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পশ্চিমবঙ্গে যাবেন। তিনি বর্ধমানের চুরুলিয়ায় কাজী নজরুলের জন্মস্থানে যাবেন এবং নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তৃতা প্রদানের পাশাপাশি সেখান থেকে সাম্মানিক ডিলিট উপাধি গ্রহণ করবেন।

তবে কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার খাবারের মেনুতে কোনো মাংস রাখা হচ্ছে না বলে দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া।। পশুর মৃতদেহ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে তীব্র এক বিতর্ক শুরু হয়েছে। এই বিতর্কের প্রভাব যাতে শেখ হাসিনার সফরে না পড়ে সে জন্য তার খাবারের মেনু থেকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মাংসই বাদ দিয়েছে।

এদিন রাষ্ট্রীয় অতিথিদের জন্য প্রস্তুত করা বিশেষ মধ্যাহ্ন ভোজে থাকবে না কোনো মুরগি বা খাসির মাংস। এদিনের মেনুতে থাকবে বর্ধমানের বিখ্যাত মিষ্টি মিহিদানা ও সীতাভোগ। এ ছাড়া থাকবে কৃষ্ণনগরের সরপুরিয়া ও সর ভাজা। এর সঙ্গে থাকবে বাংলার মাছ। তবে ওই মধ্যাহ্নভোজে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী আদৌ কিছু খাবেন কিনা তা পরিষ্কার হওয়া যায় নি। কারণ, এখন পবিত্র রমজান মাস। তা সত্ত্বেও সব আয়োজন রাখা হবে।

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে পরদিন ২৫শে মে বিশ্বভারতীতে বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নকৃত ২৫ কোটি রুপি ব্যয়ে নির্মিত ‘বাংলাদেশ ভবন’ উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা। এই উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উপস্থিত থাকবেন।

সেখানে ৪৫ মিনিটের বৈঠক হতে পারে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। এ সময় তাদের মধ্যে তিস্তার পানি বন্টন, আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাস, মিয়ানমার থেকে দলে দলে রোহিঙ্গাদের দেশ ত্যাগ করে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়ার মতো ইস্যু এতে থাকতে পারে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

এতে বলা হয়, বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইন্যু ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে ঢাকা থেকে বলেছেন, শেখ হাসিনার সফরে প্রধান এজেন্ডা হলো সাংস্কৃতিক সহযোগিতা বৃদ্ধি।