SOMOYERKONTHOSOR

ফাইনালের পথে কলকাতা

স্পোর্টস ডেস্কঃ রাজস্থান রয়েলসকে ২৫ রানে হারিয়ে ফাইনালের আশা টিকে রাখল কলকাতা নাইট রাইডার্স।

এই জয়ের ফলে শনিবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচের টিকিট নিশ্চিত হলো দিনেশ কার্তিকদের।

শনিবার সাকিব আল হাসানদের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ এবং কলকাতা নাইট রাইডার্সের মধ্যকার খেলায় যারা জিতবে তারা ২৭ মে মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে ফাইনালে খেলবে।

বুধবার আগে ব্যাটিংয়ে নেমে চমর বিপর্যয়ে পড়ে কলকাতা। প্রথম দিকে চরম ব্যাটিং বিপর্যয় থেকে দলকে টেনে তুলেন দিনেশ কার্তিক ও আন্দ্রে রাসেল। তাদের অনবদ্য ব্যাটে শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে ১৬৯ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে নাইট রাইডার্স।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৪ উইকেটে ১৪৪ রান করতে সমর্থ হয় আজিঙ্কা রাহানের নেতৃত্বাধীন রাজস্থান রয়েলস।

রাজস্থানের শুরুটা অবশ্য খারাপ হয়নি। উদ্বোধনীতে ৫.১ ওভারে ৪৭ রান তুলে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার রাহুল ত্রিপাথি। তিনে ব্যাটিংয়ে নামা সাঞ্জু স্যামসনকে সঙ্গে নিয়ে ৬২ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক রাহানে। ৪১ বলে ৪৬ রান করে রাহানে বিদায় নিলেও ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়ে যান স্যামসন।

শেষ দিকে ২০ বলে প্রয়োজন ছিল ৪৪ রান। তখনও দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন সাঞ্জু। কিন্তু ১৭তম ওভারে পিযুষ চাওলার গুগলি বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ৩৮ বলে দুই ছক্কা এবং চার বাউন্ডারিতে ৫০ রান করা স্যামসন।

তার বিদায়ের মধ্য দিয়ে পরাজয় নিশ্চিত হয়ে যায় রাজস্থানের। শেষ পর্যন্ত লড়াই করেও দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছাতে পারেননি হেনরি ক্লাশেন।

বুধবার কলকাতার ইডেন গার্ডেনে টসে জিতে কলকাতাকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায় রাজস্থান। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে কলকাতা।

ইনিংসের প্রথম বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে উড়ন্ত সূচনার আভাস দিয়ে ঠিক পরের বলে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার সুনিল নারিন।

এরপর ২০ রানের ব্যবধানে ফেরেন রবিন উথাপ্পা এবং নিথিস রানা। স্কোর বোর্ডে ৫১ রান জমা করতেই ফেরেন অন্য ওপেনার ক্রিস লিন।

৫১ রানে ৪ ব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়া দলটিকে খেলায় ফেরান অধিনায়ক কার্তিক ও রাসেল। তাদের কল্যাণে সম্মান জনক স্কোর গড়তে সক্ষম হয় কলকাতা। দলের হয়ে ৩৮ বলে দুই ছয় এবং চার বাউন্ডারিতে ৫২ রান করে ফেরেন কার্তিক।

ইনিংসের শেষ বল পর্যন্ত খেলে যাওয়া অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল ২৫ বলে পাঁচ ছক্কা এবং তিন বাউন্ডারিতে ৪৯ রান করেন।