ফলোআপ: সুন্দরবনে আত্মসমর্পণ করা ৫৭ দস্যুর নামে মামলার পর কারাগারে প্রেরণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বাগেরহাট :: সুন্দরবনের ছয়টি দস্যু বাহিনীর ৫৭ জন সদস্যের নামে অস্ত্র আইনে র‌্যাব-৬ এর ডি এ ডি কামরুল ইসলাম এবং র‌্যাব-৮ এর ডি এ ডি মো. লুৎফর রহমান বাদী হয়ে পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করেছেন।

গতকাল (বুধবার) ‘রাত ১১টায় তাদেরকে ৫৮টি অস্ত্র এবং ২৮৪ রাউন্ড গুলিসহ মোংলা থানায় সোপর্দ করা হলে ওই মামলা দায়ের করা হয়। এর আগে বুধবার সকালে খুলনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ৫৮টি অস্ত্র এবং ২৮৪ রাউন্ড গুলি জমা দিয়ে দস্যুরা আত্মসমর্পণ করে।

মোংলা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী বৃহস্পতিবার সময়েরকণ্ঠস্বরকে জানান, রাত ১১টায় তাদেরকে অস্ত্র ও গুলিসহ মোংলা থানায় সোপর্দ করা হয়। এসময় অস্ত্র আইনে পৃথক দুইটি মামলা দায়েরের পর সকালে আসামিদের বাগেরহাট কোর্টে পাঠানো হয়। কোর্ট পরে আসামিদের বাগেরহাট জেল হাজতে পাঠায়।

আত্মসমর্পণ করা দস্যু বাহিনীরা হলো দাদা ভাই, হান্নান, আমির আলী, সূর্য্য, ছোট শামসু ও মুন্না বাহিনী। এদের বাড়ি মোংলা, সাতক্ষীরা, কয়রা ও বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।

উল্লেখ্য, গত ২৩ মাসে সুন্দরবনের ২০ দস্যু বাহিনীর ২১৭ জলদস্যু ৩৬৪টি অস্ত্র ও ১৭ হাজার ৮৬৯ রাউন্ড গুলিসহ আত্মসমর্পণ করে।