গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুমড়ে-মুচড়ে গেলো ‘যাত্রীবাহী বাস’: হাত বিচ্ছিন্ন হলো যাত্রীর

বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় একটি যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশে গাছের সঙ্গে সংঘর্ষ হলে চাপায় পড়ে ডান হাত হারিয়েছেন আনিছুর রহমান (৩৫) নামে এক যাত্রী। হাত হারানো আনিছুর রহমান পঞ্চগড় জেলা ও উপজেলার কামাতপাড়ার মৃত আজিজুর রহমানের ছেলে। বৃহস্পতিবার বিকালে নন্দীগ্রাম উপজেলার কালিকাপুর এলাকায় বগুড়া-নাটোর মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আনিছুর রহমান পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধায় কাস্টমসে সিপাই পদে চাকরি করেন। তার স্ত্রী ও ১৪ মাস বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। একই ঘটনায় আহত আছির উদ্দিন (৫০) নামে একজন একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

হাইওয়ে পুলিশ কুন্দারহাট ফাঁড়ির সার্জেন্ট আজিজুল হক ও ছিলিমপুর ফাঁড়ির এসআই আজিজ মণ্ডল জানান, রাজশাহী ছেড়ে আসা রংপুরগামী আগমণী পরিবহণের একটি বাস বৃহস্পতিবার বিকালে বগুড়ার নন্দীগ্রামের কালিকাপুর এলাকায় মহাসড়কে পৌঁছে। এ সময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি মহাসড়কের পাশে একটি গাছে ধাক্কা দেয়।

এতে বাসটি দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে যাত্রী পঞ্চগড় সদরের কামাতপাড়ার আজিজার রহমানের ছেলে কাস্টমসের সিপাই আনিসুর রহমান ও রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার সয়াচাঁনপাড়ার এমাজ উদ্দিনের ছেলে আছির উদ্দিন (৫০) গুরুতর আহত হন। এদের মধ্যে আনিসুর রহমানের ডান হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে মাটিতে পড়ে যায়। পুলিশ ও স্থানীয়রা দ্রুত দুজনকে উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে পাঠান।