দেশে নয়, বিদেশে গিয়েই প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র পৌছে দেবে ইসি!

সময়ের কণ্ঠস্বর :: গণতন্ত্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ভোট। একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের নাগরিকদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে হয়। প্রবাসী নাগরিকেরাও যাতে সেই অধিকার থেকে বঞ্চিত না হন এবং তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগে যাতে কোন সমস্যা না হয় সে বিষয়ে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

বিদেশে বসবাসকারী নাগরিকদের ভোটার পরিচয়পত্র দিতে তাদের কাছে পৌঁছে যাবে নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধিদল। রবিবার নির্বাচন কমিশন ভবনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই খবর জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয় ও নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।

কর্মসূত্রে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে রয়েছেন বাংলাদেশিরা। সেই সকল নাগরিকদের ভোটার পরিচয়পত্রের বিষয়ে আলোচনা হয় বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের বৈঠকে। সেই বৈঠকেই স্থির হয় যে বিদেশে গিয়ে দূতাবাসের মাধ্যমে ভোটার লিস্টে প্রবাসীদের নাম তোলার কাজ শুরু করা হবে। মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম জানিয়েছেন যে আগামী জুলাই মাসের মধ্যেই এই প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে সবথেকে বেশি রয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে। সেখান থেকেই নির্বাচন কমিশনের এই এই বিশেষ কর্মসূচী শুরু হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় পরিচয় ও নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক।

তিনি বলেন, “প্রাথমিকভাবে আমরা মধ্যপ্রাচ্যের দু-একটি দেশে এই প্রক্রিয়া শুরু করব। আমাদের কোথায় কী অসুবিধা আছে বা আরও কী কী প্রয়োজন তা পর্যালোচনা করা হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে সব দেশে এক কোটিরও বেশি বাংলাদেশি প্রবাসীকে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান এবং ভোটার তালিকায় নাম তোলার কাজ চলবে।”

খুব শীঘ্রই বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধিদল প্রবাসী ভোটারদের নাম নির্বাচন কমিশনের তালিকায় নাম তোলার জন্য মধ্যপ্রাচ্যে রওনা দেবেন বলে জানিয়েছেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।

একই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, প্রবাসীদের সুবিধা-অসুবিধার কথা মাথায় রেখে আমরা এই প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছি। বিদেশে বসেই দূতাবাসের মাধ্যমে তারা জাতীয় পরিচয়পত্র পেয়ে যাবেন। এই পরিচয়পত্র দেখিয়ে দূতাবাসের যাবতীয় সুবিধা ভোগ করতে পারবেন প্রবাসীরা।

এ ছাড়াও দেশে ফিরেও প্রশাসনিক কোনও কাজ করার ক্ষেত্রে এই ভোটার পরিচয়পত্র খুবই সহায়ক হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয় ও নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক।