শরণখোলায় পানিতে ডুবে তিন শিশুর মৃত্যু: কাকতালীয়ভাবে তিনজনের নামই জান্নাতী!

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের শরণখোলায় পানিতে ডুবে দুই শিশু বান্ধবীর করুন মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার বলেশ্বর নদী থেকে দুই বান্ধবীকে উদ্ধার করে এলাকাবাসী। নিহতরা হলো- উপজেলার রায়েন্দা গ্রামের ছায়েদুর রহমানের মেয়ে জান্নাতী (৯) ও একই গ্রমের বাচ্চু মোল্লার মেয়ে জান্নাতী (৯) এরা দুজনই স্থানীয় তাফালবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী।

রায়েন্দা সদর ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন জানান, ছায়েদুর রহমান ও বাচ্চু মোল্লার বাড়ী বলেশ্বর নদীর পাড়ে হওয়ায়, দুপুরে গোসল করতে নদীতে গোসল করতে যায় দুই বান্ধবী। তারা নদীতে ডুব দিয়ে আর উঠে না আসায় নদীর পাড়ে থাকা আ. জলিল নামের এক জেলে তা লক্ষ্য করেন। দীর্ঘ সময় তাদের ডুবে থাকতে দেখে জলিল নিজেই নদীতে নেমে খোঁজ করতে থাকেন। একপর্যায় দুই জান্নাতীকে নদী থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত বলে ঘোষনা করেন।

এর আগেরদিন বুধবার উপজেলার উত্তর রাজাপুর গ্রামের আনোয়ার হাওলাদারের মেয়ে জান্নাতী (১০) নিজ বাড়ির পুকুরে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হয়। পরে পুকুর থেকে তার ভাসমান লাশ উদ্ধার করে পরিবার।

শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অসীম কুমার সমাদ্দার জানান, পানিতে ডোবা তিন শিশুকেই মৃত অবস্থায় হাসাপাতালে আনা হয়। কাকতালীয়ভাবে তিন শিশুর নামই জান্নাতী।