বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ‘কিশোরী প্রেমিকা’কে ট্রলারে রাতভর ৫ বন্ধুর গনধর্ষণ!

পটুয়াখালী প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার রনগোপালদী ইউনিয়নের মোজাম্মেল গাজির ছেলে সেকান্দারের সাথে গলাচিপা উপজেলার পানপট্রি এলাকার এক কিশোরীর (১৭) মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মঙ্গলবার রাতে ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে দশমিনার রনগোপালদী ইউনিয়নের পাতার চর এলাকায় নিয়ে আসেন সেকান্দার। এ সময় সেকান্দারের সঙ্গে তার চার বন্ধু যোগ দিয়ে কিশোরীকে একটি ট্রলারে করে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে রাতভর গনধর্ষণ করেন। অন্যরা হলেন দশমিনার রনগোপালদী ইউনিয়নের রাজ্জাক বেপারীর ছেলে জুয়েল, বজলী খার ছেলে হাসান, রিয়াজ হাওলাদারের ছেলে রাকিব হাওলাদার এবং ইদ্রিস খানের ছেলে সিদ্দিক খান।

এ ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় ওই কিশোরী ৫ জনের নাম উল্লেখ করে দশমিনা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এরপর পুলিশ বুধবার রাতেই অভিযান চালিয়ে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার ভোরে মেয়েটির চিৎকার শুনে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে গলাচিপা পাঠিয়ে দেয়। ওইদিনই গলাচিপা থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে ঘটনাস্থল দশমিনা হওয়ায় কিশোরী ও তার পরিবারের সদস্যদের দশমিনা থানায় পাঠিয়ে দেয়। পরে সন্ধ্যায় দশমিনা থানায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ওই কিশোরী।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইনস্পেক্টর সুমন হালদার জানান, মামলার পর অভিযান চালিয়ে সেকান্দার,জুয়েল ও হাসানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। শারীরিক পরিক্ষার জন্য ওই কিশোরীকে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।