ইন্টারনেটে ‘কচ্ছপগতি’! দেশজুড়ে বন্ধ উচ্চগতির সব মোবাইল সেবা

সবকটি মোবাইল অপারেটর বন্ধ করে দিয়েছে উচ্চগতির ইন্টারনেট সেবা!

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে থ্রিজি ও ফোরজি সেবা বন্ধের খবর জানা গেছে। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই খবর নিশ্চিত করেছেন। হঠাৎ করে এই সেবা বন্ধ করে দেয়ায় অনেকে ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন।

কিছু অসমর্থিত সুত্র জানাচ্ছে আগামী ২৪ ঘন্টা বন্ধ থাকবে এই সেবা ।

মুলতঃ ফেইসবুকে গুজব ছড়ানোর মাধ্যমে ঢাকার ধানমণ্ডিতে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ কর্মীদের সংঘাতের পর মোবাইল ইন্টারনেটের ফোর জি ও থ্রি-জি সেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টা এই সেবা পাবেন না গ্রাহকরা। তবে মোবাইলফোনে ধীরগতির ইন্টারনেট এবং টুজি সেবা বহাল আছে।

শনিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এই সেবা বন্ধের নির্দেশ দেয় বলে জানিয়েছে বেশ কয়েকটি সুত্র ।

এর আগে গত রবিবার রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় শহীদ রমিজউদ্দিন কলেজের দুই শিক্ষার্থী মারা যাওয়ার পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে শিক্ষার্থীরা। গত কয়েক দিনের আন্দোলনে রাজধানী অনেকটা স্থবির হয়ে পড়েছে।

‘এরই মধ্যে শিক্ষার্থীদের শান্তিপুর্ন আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে অনেকেই সামাজিক মাধ্যমে ছড়াচ্ছেন গুজব’ এমন অভিযোগের ভিত্তিতে অবশেষে বন্ধ হয়ে গেছে ইন্টারনেটে দ্রুতগতির সেবা।

তবে দেশের বিভিন্নস্থানে ইন্টারনেট ধীরগতিতে চললেও বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জহুরুল হক এই অভিযোগ অস্বীকার করে জানালেন, “ অপারেটরগুলোকে এভাবে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। ইন্টারনেট ঠিকই আছে।”

এই আন্দোলনের মধ্যেই শনিবার ধানমন্ডিতে চারজনকে হত্যা এবং চারজনকে ধর্ষণের গুজব ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। অনেকে লাইভে এসে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার খবর ছড়ায়। পরে অবশ্য শিক্ষার্থীরাই নিশ্চিত করে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোবাইল অপারেটরগুলোর একাধিক কর্মকর্তা সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ইন্টারনেটের গতি ১.২৮ কেবিপিএসে নামানোর ‘নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে’ তাদের। তারা বলেছেন, সন্ধ্যার পর থেকে এই নির্দেশনা বাস্তবায়নে কাজ করছেন তারা।

তবে এই নির্দেশনা কত দিনের জন্য বা কত ঘণ্টার জন্য এই নির্দেশনা সে সম্পর্কে কিছু বলতে চাননি এই কর্মকর্তারা।

এদিকে, আজ সন্ধ্যায় বিটিআরসির উর্দ্ধতন এক কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, সরকারের উচ্চপর্যায়ের সিদ্ধান্ত বিটিআরসির সংশি­ষ্ট বিভাগকে অনেক নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে হয়। এরই ধারাবাহিকতায় এমন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এ কারণে মোবাইল ইন্টারনেট পেতে সমস্যা হতে পারে, সেটা পুরোপুরি বন্ধের মতো না।

তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ১.২৮ কেবিপিএসে ফেইসবুকে ছবি আপলোড করা সম্ভব হবে না। অন্যান্য ওয়েবসাইট দেখতেও বেশ ভোগান্তিতে পড়তে হবে গ্রাহকদের ।