নাটোরে বাস-লেগুনা সংঘর্ষে ১৫ নিহতের ঘটনায় মামলা

সময়ের কণ্ঠস্বর, নাটোর :: নাটোরের লালপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৫ জন নিহতের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। শনিবার রাতে উপজেলার কদিমচিলান কিলিক মোড় এলাকায় নাটোর-পাবনা মহাসড়কের ওই দুর্ঘটনার পর গভীর রাতে লালপুর থানায় মামলাটি করেন বনপাড়া হাইওয়ে পুলিশের এএসআই ইউসুফ আলী।

এতে, বাস ও লেগুনার চালকসহ সাতজনকে আসামি করা হয়েছে। আসামিদের মধ্যে রয়েছেন- বনপাড়া লেগুনা মালিক সমিতির সভাপতি জাবেদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, দুর্ঘটনায় নিহত লেগুনার চালক নিহত রহিম ও সহকারী রাজা এবং দুর্ঘটনা ঘটানো বাসটির চালক ও হেলপার।

এদিকে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে কাজ শুরু করেছে তদন্ত কমিটি। প্রাথমিকভাবে তারা জানিয়েছেন, দুর্ঘটনাকবলিত চ্যালেঞ্জার বাসের রুট পারমিট ছিলো না; লাইসেন্স ছিলো না লেগুনারও।

অন্যদিকে দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে ১৪ জনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাদের লাশ হস্তান্তরও করা হয়েছে স্বজনদের কাছে। বাকি একজনের মরদেহ রাখা হয়েছে বনপাড়া হাইওয়ে থানায়। আহত অন্তত ১৫ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন রাজশাহী মেডিকেলসহ নাটোরের বিভিন্ন হাসপাতাল-ক্লিনিকে।

প্রসঙ্গত, শনিবার বিকেল ৪টার দিকে পাবনা থেকে বগুড়াগামী চ্যালেঞ্জার পরিবহনের একটি বাস কদিমচিলান এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি লেগুনাকে সামনে থেকে চাপা দেয়। এতে লেগুনার সকল যাত্রী ছিটকে পড়লে চাপা পড়ে দুই শিশু, ছয় নারীসহ ১০ জন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পরে হাসপাতালে তিনজন ও এরপর আরও একজন মারা যান এবং গভীর রাতে আরেকজনের মৃত্যু হয়।