ফুলবাড়ীতে একটি কালভার্ট হাজারও মানুষের ভোগান্তির কারণ!

৪:২৮ অপরাহ্ণ | বুধবার, আগস্ট ২৯, ২০১৮ দেশের খবর, রংপুর, সমস্যা ও সমাধান

অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কালভার্টিটি সংস্কার না করায় হাজারও মানুষের দুর্ভোগ। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে,উপজেলার শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের তালুক শিমুলবাড়ী সংলগ্ন মধ্য জ্যোতিন্দ্র নারায়ণ গ্রামে।

র্দীঘদিন ধরে দোলাটারী,মাষ্টারপাড়া,সন্তোরায় পাড়,ধনীটারী,চর-শিমুলবাড়ী,চর-জ্যোতিন্দ্র নারায়ণ,গুয়াবাড়ী ঘাট,মধ্য জ্যোতিন্দ্র নারায়ণ,তালুক শিমুলবাড়ী গ্রামের হাজার হাজার বাসিন্দরা ওই ভাঙ্গা কালভার্টের উপর দিয়ে বাধ্য হয়ে দৈনদিন চলাচল করতে হচ্ছে। এই কালভার্টটি র্দীঘদিন ধরে সংস্কারের না করায় এলাকার হাজার হাজার মানুষের ভোগান্তির স্বিকার হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিনেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচলে অনেক পথচারীর দূর্ঘটানার কবলে পড়েছে। যেন দেখার কেউ নেই।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জনগনের চরম দুর্ভোগ লাঘবে কালভার্টটি মেরামতের কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ রয়েছে। এই ক্ষতিগ্রস্থ কালভাটর্টের ফলে গুয়াবাড়ী ঘাট,কিশামত শিমুলবাড়ী,নাওডাঙ্গা যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটি যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। আগে এই রাস্তা দিয়ে ইজিবাইক,অটোরিকসা,রিকসা যাত্রী নিয়ে সব সময় যাতায়াত করলেও এখন এই ভাঙ্গা কালভার্টটি সংস্কার না করায় গত কয়েক মাস ধরে সব ধরণের যাত্রীবাহী যানবাহনগুলো চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে এলাকাবাসী ও দুরদুরান্তের অনেকেই এই ভাঙ্গা কালভার্ট দিয়ে চলাচলে ভোগান্তিতেই পড়ছেন।

এলাকাবাসী হরিপ্রসাদ,লুৎফর রহমান,তৈয়ব আলী,খালিলুর রহমান,জানান,গত বর্নায় প্রবল স্রোতে কালভার্টটি ভেঙ্গে যাওয়ায় আমরা চরম দুর্ভোগে পড়েছি। তাছাড়া এই কাঁচা রাস্তাটি মাষ্টারপাড়া থেকে গুয়াবাড়ী ঘাট পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার। বর্ষাকালে কর্দমাক্ত হয়ে পড়ায় এলাকার হাজার হাজার মানুষের জন্য চলাচলের চরম দুর্ভোগের স্বিকার হতে হয়। তাই তারা ভাঙ্গা কালভার্টটি মেরামতসহ কাঁচা রাস্তাটি পাঁকা করার দাবী জানান।

মধ্য জ্যোতিন্দ্র নারায়ণ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী রিয়াদ উদ্দিন মুন্না ও আরিফা খাতুন জানান,বিগত এক বছর ধরে এই কালভার্টটি ভেঙ্গে যাওয়ায় হাজার হাজার গ্রামবাসীসহ আমরা জীবনের ঝঁকি নিয়েই এই রাস্তায় যাতায়াত করতে হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে শিমুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এজাহার আলী জানান,ক্ষতিগ্রস্থ কালভার্টটি সংস্কারের আমাদের পরিষদে বরাদ্দ নেই। তারপরেও তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি জানিয়ে এটি সংস্কারের জন্য বরাদ্দ চাওয়া হবে। যদি কোথাও বরাদ্দ না মেলে তবে খুব দ্রুত সময়ে নিজ উদ্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ কালভার্টটি সংস্কার করা হবে।

Loading...