এক যুগ পর পাহাড় কাটা বন্ধে মাঠে নেমেছে প্রশাসন

৮:২৭ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

এস.কে খগেশপ্রতি চন্দ্র খোকন, লামাঃ  লামা উপজেলায় আশংকাজনক হারে পাহাড় কাটা বৃদ্ধি পাওয়ায় গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১১ ঘটিকার সময় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ‘ লামা উপজেলায় অবৈধ ভাবে পাহাড় কর্তন প্রতিরোধ বিষয়ে সচেতনতা মূলক মতবিনিময় সভা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

লামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর এ জান্নাত রুমি’র সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ হল রুমে উপজেলার সাত ইউনিয়ন একটি পৌরসভার হেডম্যান, কারবারী, সকল জনপ্রতিনিধি ও সরকারী- বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রধান এবং সচেতন লোকজন উপস্থিত থেকে মতামত প্রদান করেন।

৩০৬ নং ফাইতং মৌজার উম্রামং মার্মা ও আজিজ নগর ইউপির ৬নং ওয়ার্ডের রোকন  উদ্দিন মেম্বার বলেন, ফাইতং ইউনিয়নে গত এক যুগেরও সময় ধরে পাহাড় কাটা চলছে। তার কারণে শতশত পাহাড় কেটে সাবাড় করে দিয়েছে।  ২০০৩ সাল থেকে লামা উপজেলার ফাইতং ইউনিয়নের ইটভাটা স্থাপন শুরু হয়। বর্তমানে ফাইতং ইউনিয়নে ২৪ টি ইটভাটা রয়েছে। নতুন করে চলতি বছর আরো পাঁচটি ইটভাটার স্থাপনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এ ইটভাটার কারণে, ইউনিয়নের সকল কাঁচা-পাকা রাস্তা ভেঙ্গে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে। ইটভাটাগুলোর বিরোদ্ধে প্রশাসনের কাছে অনেক অভিযোগ দিয়েছি। এ পর্যন্ত কোন কার্যকর ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি।

এ ছাড়া উপজেলার গজালিয়া ইউপি’র চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা বলেন, ইটভাটা গুলোর মালিকরা অনেক প্রভাবশালী। তারা ইউনিয়ন পরিষদের কোন আইনও মাননেনা। তারা শতভাগ বনের গাছ আর পাহাড়ের মাটি দিয়ে ইট পুড়িয়ে যাচ্ছে। তিনি মাটি কাটা বন্ধ করা গেলে প্রতিবছর পাহাড় ধ্বস ও পরিবেশ রক্ষা করা যাবে বলে যানান।

মতবিনাময় সভা শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেষে নুর এ জান্নাত রুমি বলেন, লামা উপজেলায় ইতিপূর্বে অবৈধভাবে অনেক পাহাড় কাটা হয়ে গেছে। আর এক কোদাল মাটিও পাহাড় থেকে নেওয়া যাবেনা। লামা উপজেলায় ৩০ টি ইটভাটার মধ্যে কোন ইটভাটার পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র কিংবা  জেলা প্রশাসনের অনুমতি নেই। কোন রকম বৈধ কাগজ পত্র না থাকা সত্বেও ইটভাটার মালিকরা দীর্ঘ ১০ বছর ধরে স্কেভেটর দিয়ে পাহাড় কেটে সাবাড় করে দিয়েছে অনেক পাহাড়। পাহাড় কাটা সম্পূর্ণ বন্ধ  লামা উপজেলা প্রশাসন মাঠে নেমেছে। ইতিমধ্যে গত ২৯ ও ৩০ আগষ্ট লামা উপজেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর মিলে নতুন তিনটি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে মাটিকাটার স্কেভেটরসহ ইত্যাদি ষড়ঞ্জাম জব্দ করা হয়েছে। আপনারা সকলে তথ্য দিয়ে আমাদের সহায়তা করুন।