পানছড়িতে বাতির নিচে অন্ধকার!

১০:৩৪ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

মোফাজ্জল হোসেন ইলিয়াছ, খাগড়াছড়ি থেকে :: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার পানছড়ি উপজেলায় বাতির নিচে অন্ধাকার রয়েছে। দীর্ঘ ২২বছর যাবত এলাকাটির মাঝে বিদ্যুৎ খুটি থাকলেও পাশের মানুষ গুলো রয়েছে অন্ধাকারে। অনেক দের দরবার করেও বিদ্যুৎ এর আলো জ্বলছে না ত্রিপুরা ও বাঙ্গালী সম্প্রদায়ের ৫০ পরিবারের ঘরে। অথচ ত্রিপুরাপাড়া থেকে বিদ্যুৎ এর সাব ষ্টেশন মাত্র আধা কিলোমিটার দুরে অবস্থিত।

জানা যায়, ৩নং পানছড়ি সদর ইউপির ৩নং মোহাম্মদপুর ওয়ার্ডে ১৯৯৬ সালে বিদ্যুৎয়ানের আওতায় আনা হয়। কিন্তু মোহাম্মদপুর এলাকায় বৈদুৎতিক খুটি বসানো হলেও মোহাম্মদপুর গ্রামের ত্রিপুরা এলাকায় বিদ্যুৎ এর খুটি না বসানোর কারণে ৫০টি পরিবার বিদ্যুৎ আলো থেকে হচ্ছে বঞ্চিত। ৬পরিবার ২শ থেকে আড়াইশ গজ তার দিয়ে নিজের ঘরে বিদ্যুৎ এর আওতায় আসলেও গরীব ত্রিপুরা ও বাঙ্গালী পরিবার গুলো রয়েছে বিদ্যুৎ বিহীন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মোহাম্মদপুর গ্রামের উত্তর মাথা মেস্ত্রীর বাড়ি পর্যন্ত বিদ্যুৎ এর খুটি বসানো হয়েছে। আর এখান থেকেই ৫পরিবার ২-২.৫০ গজ তার দিয়ে নিজ নিজ বাড়িতে বিদুৎ এর ব্যবস্থা করেছে। বাতী ৪৫ পরিবার রয়েছে বিদ্যুৎ বিহীন। মাত্র ১০টি খুটির বসানো হলেই অনায়াসেই ৪৫াট পরিবার বিদ্যুৎ এর সুবিধার আওতায় আসবে।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী রুহুল আমিন ও মুনছুর আলী বলেন, আমাদের এলাকার পয়সা ওয়ালা কয়েক পরিবার অনেক টাকা ব্যায় করে বিদ্যুৎ এর সুবিধা ভোগ করছে গরীববা রয়েছে বিদ্যুৎ বিহীন যদি ১০-১২টি নতুন খুটির ব্যবস্থা করা হতো তবে ৫০টি পরিবার বিদ্যুৎ এর সুবিধা ভোগ করতে পারতো।

এ ব্যপারে পানছড়ি উপজেলা আবাসিক প্রকৌশলী মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন, মোহাম্মদপুর এলাকাবাসী রাঙ্গামাটি আবেদন করলে সেই মোতাবেক অনুমোদন হলে, ট্রেন্ডারের মাধ্যমে প্রকল্প অনুযায়ী কাজ হবে।