মাগুরায় গ্রামীণ সংঘাত ঠেকাতে জেলা পুলিশের পদক্ষেপ

মতিন রহমান, মাগুরা করেসপন্ডেন্ট :: মাগুরা সদর উপজেলার গোপালগ্রাম ইউনিয়নে সম্প্রতি গ্রাম্য দলাদলিকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট মারামারি ও বাড়িঘর ভাংচুর সহ হানাহানি ঠেকাতে পুলিশের পক্ষ থেকে এলাকার জনসাধারণকে শপথ বাক্য পাঠ করানো হয়। বুধবার বিকালে গোপালগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সামনে এলাকাবাসীকে একত্রে করে শান্তির বার্তা দেন মাগুরা জেলা পুলিশ।

উক্ত ইউনিয়নের সামাজিক মাতব্বর পান্না মোল্লা, লিয়াকত, আবুল কাসেম সহ উভয়পক্ষের ৩ শতাধিক লোকজন পরিষদের সামনে হাত উচু করে হানাহানি বন্ধের জন্য এ শপথ করেন। জানা যায়, এই ইউনিয়নে দীর্ঘ কয়েক যুগ ধরে সামাজিক গ্রুপিংয়ের কারণে মারামারি হানাহানি লেগেই থাকে। তাই এই এলাকায় শান্তি ফেরাতে মাগুরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মাগুরা জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ নাসিরুল ইসলাম মিলন, গোপালগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান রাজিব। গোপালগ্রাম ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আঃ রউফ সহ অন্যান্য নেতাকর্মী।

মাগুরা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ তরিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) আহসান হাবিব, মাগুরা সদর থানার (ওসি) মোঃ সিরাজুল ইসলাম সহ স্থানীয় শত্রুজিৎপুর পুলিশ ক্যাম্পের এসআই জাফরউল্লাহ সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ নাসিরুল ইসলাম মিলন, গোপালগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান রাজিব। গোপালগ্রাম ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আঃ রউফ সহ অন্যান্য নেতাকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লখ্য গতকাল (১১ ই সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার গোপালগ্রাম ইউনিয়নের সংকোচখালী গ্রামে পান্না মোল্যা ও আবুল কাসেম সমর্থকদের মধ্যে আদিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মারামারি সংঘটিত হয়। পরবর্তীতে এই সংঘাত ইউনিয়নব্যাপি ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে এলাকায় শান্তির ফিরিয়ে আনতে জনগণকে নিয়ে এ শপথবাক্য পাঠ করান মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তরিকুল ইসলাম।

এসময় তরিকুল ইসলাম উপস্থিত জনতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা ভাই ভাই একসঙ্গে মিলেমিশে থাকুন। তাতে করে সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে। তিনি আরো বলেন, পুলিশ আপনাদের বন্ধু, তবে আপনারা বারবার মারামারি ও অশান্তি করার চেষ্টা করলে পুলিশ তা কঠোর হাতে দমন করবে। সবশেষে উভয় দলের নেতাদের সাথে হাতে হাত মিল করে শান্তি সভা শেষ হয়।