রংপুরে চালু হলো ডিজিটাল ই-ট্রাফিক সেবা

মেজবাহুল হিমেল, রংপুর প্রতিনিধি: ট্রাফিক পুলিশের কার্যক্রমকে আরও বেশি গতিশীল ও মটর যান চালকদের দোরগড়ায় ডিজিটাল সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে রংপুরে চালু হয়েছে ই-ট্রাফিক প্রসিকিউশন কার্যক্রম।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর মেডিকেল মোড় এলাকায় বেলুন উড়িয়ে ডিজিটাল এই সেবার উদ্বোধন করেন – মেট্টোপলিটন পুলিশ কমিশনার মুহম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ ও বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য।

এর আগে রংপুর মহানগরে নতুন এই সেবার বিষয়ে মেট্টোপলিটন পুলিশ কমিশনার মুহম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ বলেন, দূর-দুরান্তে যানবাহন চলাচল করতে গিয়ে চালকদের ট্রাফিক আইন মানতে বাধ্য করবে এই সেবা। ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের তাৎক্ষনিক জরিমানা-মামলাসহ জরিমানার টাকা আদায় করতে পারবে পুলিশ। এক্ষেত্রে চালকরাও অতি সহজে ইউ-ক্যাশ সেবার মাধ্যমে জরিমানা পরিশোধ করতে পারবে।

তিনি বলেন, আরপিএমপি যাত্রার ২৫ দিনের মাথায় রংপুরে এই সেবা চালু করা হলো। এতে করে সাধারণ মানুষের শ্রমশক্তির অপচয় রোধ, ট্রাফিক আইনের মামলায় হয়রানি ও দুর্ভোগ কমে আসবে। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে বা অফিস-আদালত ঘুরে ভোগান্তির পরতে হবে না। রংপুরের ১১টি পয়েন্টে ও বুথে ই-ট্রাফিক সেবা নিতে পারবেন ভুক্তভোগিরা।

অনুষ্ঠানে রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য বলেন, ই-ট্রাফিক সেবা চালু হওয়ার ফলে রংপুরে ট্রাফিক আইন মেনে যানবাহন চলাচলে আরও বেশি শৃঙ্খলতা আসবে। ট্রাফিক পুলিশ তাদের কার্যক্রম আরও স্বচ্চভাবে পালন করতে পারবে। পাশাপাশি চালকরাও বৈধ কাগজ-পত্র নিয়ে চলাচলে বাধ্য হবে। এতে সড়ক দুর্ঘটার হার অনেক কমে আসবে। এ সময় তিনি দ্রুত সময়ের মধ্যে রংপুর বিভাগের আট জেলাতে ই-ট্রাফিক কার্যক্রম শুরু হবে বলেও জানান।

উদ্বোধনী আয়োজনে আরপিএমপি’র উপ-পুলিশ কমিশনার (হেড কোয়ার্টার্স) মহিদুল ইসলাম, উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মোত্তাকিন মিনান, অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) শহিদুল্লাহ কাওছার, সহকারী পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) ইমরুল কায়েস, পুলিশ পরিদর্শক (ট্রাফিক) দেলোয়ার হোসেনসহ রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is.

Share on facebook
Share with others
Share on google
Share On Google+
Share on twitter
Share On Twitter
  • You May Also Like:
  • Top Views
আলোচিত বাংলাদেশ

চকবাজারে ড. কামাল

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক :: চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পেছনে মূল কারণ এবং দায়ীদের