ঝিনাইদহে প্রতারকের বিচারের দাবিতে অশ্রুসিক্ত সংবাদ সম্মেলন

১:৫৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৮ খুলনা

আরাফাতুজ্জামান, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহে প্রতারণার ফাঁদে পড়ে ভিটে বাড়ীসহ সহায় সম্বল হারিয়ে বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে অপূর্ব হাসান নামে এক যুবক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অপূর্ব হাসানের বৃদ্ধ বাবা টেংরা আলী মন্ডল, বৃদ্ধা মা সুফিয়া বেগম ও বড় ভাই ফারুক হোসেন। সংবাদ সম্মেলনের সময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন অপূর্ব হাসানসহ তার বাবা-মা ও ভাই। তাদের কান্নায় ভারি হয়ে উঠে হল রুমের পরিবেশ।

গতকাল বুধবার ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে অশ্রুসিক্ত অপূর্ব হাসান বলেন, বিগত ৬ মাস আগে ঝিনইদহ সদর উপজেলার শংকরপুর গ্রামের রশিদ ব্যাপারীর ছেলে জহিরের সাথে ঝিনাইদহে পুলিশে কনস্টেবল পদে নিয়োগের মাঠে আসি। কিন্তু এখানে চাকুরি না হওয়ায় জহির তার বন্ধু কোটচাঁদপুর উপজেলার আলুকদিয়া গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে জহিরুল ইসলামের সাথে ঢাকার পল্টনে নিয়ে গিয়ে পরিচয় করিয়ে দেয়। সেখান থেকে তার সাথে গভীর সম্পর্ক তৈরি হয়। কিছুদিন পর জহিরুল ইসলাম ঢাকা থেকে বাড়ী এসে জহিরের উপস্থিতিতে জহিরুলের সাথে ফায়ার সার্ভিসে চাকুরি দেওয়া হবে মর্মে ১১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকার চুক্তি হয়। সেই সাথে ব্যাংকের ৫ লক্ষ টাকা করে ২টি চেক, মোট ১০ লক্ষ টাকার চেক দেওয়া হয়। পরে আমার পিতার পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া নিজ নামীয় মাঠান ৪২ শতক ও ভিটা বাড়ির ২৬ শতক জমি বিক্রয়ের ৪ লক্ষ টাকা জহিরুলকে দিই। পর্যায়ক্রমে ১১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা পরিশোধ করলেও চেক ফেরত দেয়না। পরে জানতে পারি আমার চাকুরি হয়নি। পরে টাকা ও চেক ফেরত চাইলে চেকের বিপরীতে মামলা করার হুমকি দেয়। সেই সাথে আমাদেরকে লোক মাধ্যমে হত্যার হুমকি দেয়। বর্তমানে আমরা অসহায় অবস্থায় দিন কাটাচ্ছি। আপনাদের মাধ্যমে প্রতারকের বিচার দাবি করছি। সেই সাথে চেক ও আমার টাকা ফেরত চেয়ে সরকার ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।