‘ঈশ্বর বলে কিছু নেই, সবটাই মানুষের দুর্বলতা’ এমনটাই নাকি লিখেছিলেন আইনস্টাইন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::  ক্রিস্টিজের নিলাম জানাল, ঈশ্বরে আদৌ বিশ্বাস ছিল না আইনস্টাইনের! মৃত্যুর বছরখানেক আগে ঈশ্বরকে বুড়ো আঙ্গুল দেখানো আইনস্টাইনের সেই চিঠি প্রত্যাশার প্রায় দ্বিগুণ দর পেল  নিলামে! নিউইয়র্কে  বিক্রি হল ২৯ লক্ষ ডলারে।

১৯৫৪ সালে লেখা আইনস্টাইনের সেই চিঠি নিলামের আলোয় এসে জানাল, জীবনের শেষ প্রান্তে পৌঁছেও আইনস্টাইন লিখে যাননি, ‘মরণ রে, তুঁহু মম শ্যাম সমান’! বরং আইনস্টাইনের ‘ঈশ্বর বিশ্বাস’ নিয়ে এত দিন যে ‘বিশ্বাসী’রা খুশিতে ডগমগ হয়ে উঠতেন, মৃত্যুর এক বছর আগে বন্ধুকে হাতে লেখা চিঠিতে তাঁদের হতাশই করেছিলেন এই ব্রহ্মাণ্ডের জমাট অন্ধকারে আলো ফেলা বহুদর্শী বিজ্ঞানী।

জার্মান ভাষায় লেখা ওই চিঠিতে আইনস্টাইন নিজের হাতেই অস্বীকার করেছিলেন ‘ঈশ্বরের হাত’! লিখেছিলেন, ‘‘ওই সব হাত-টাত বলে কিছু নেই। সবটাই মানুষের দুর্বলতা।’’

ওই সময়ের বিশিষ্ট জার্মান দার্শনিক এরিখ গুটকাইন্ডকে জার্মান ভাষায় লেখা দেড় পাতার ওই চিঠিতে আইনস্টাইনের বক্তব্য ছিল, ‘‘তা সে যে ধর্মই হোক, আদতে তা আমাদের আদিম কুসংস্কারই। আমি মনে করি, ঈশ্বর শব্দটা মানুষের দুর্বলতার প্রকাশ আর সেই দুর্বলতা থেকেই তার জন্ম। আর কিছুই নয়।’’

ঈশ্বরের দিকে ‘কামান দাগা’ সেই চিঠির দরদাম, ক্রিস্টিজ ভেবেছিল, নিলামে উঠবে বড়জোর ১৫ লক্ষ ডলার। কিন্তু নিলামের ফলাফল জানাল, ঈশ্বরের পরাজয়ের দাম তার প্রায় দ্বিগুণ! ৬৪ বছর আগে আইনস্টাইনের লেখা ওই চিঠির দাম উঠল ২৯ লক্ষ ডলার। ক্রিস্টিজের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘‘মৃত্যুর বছরখানেক আগে লেখা আইনস্টাইনের ওই চিঠি সত্যিই অতুলনীয়। ব্যাক্তিগত ভঙ্গিতে লেখা। ধর্ম ও দর্শন সম্পর্কে তাঁর ধ্যানধারণার সবচেয়ে পূর্ণাঙ্গ প্রকাশ।’’

সেই চিঠিতে বাইবেল-কেও তোপ দেখান আইনস্টাইন। পরোয়া করেননি নিজের ইহুদি ধর্মকেও। দার্শনিক গুটকাইন্ডকে তিনি লিখেছিলেন, ‘‘বাইবেলে তো আসলে আদিম কিংবদন্তীদের মহান বানানো হয়েছিল। তাঁদেরই স্তুতি রয়েছে সেখানে। কোনও ব্যাখ্যা, কোনও কিছুই আমার এই ধারণা বদলাতে পারবে না। একই কথা খাটে ইহুদি ধর্মের ক্ষেত্রেও।’’

আইনস্টাইনের চিঠির নিলাম অবশ্য এই প্রথম নয়। এর আগে ২০১৭-য় তাঁর একটি চিঠি নিলামে দর পেয়েছিল ৬ হাজার ১০০ ডলার। আর তার চেয়ে আরেকটু বেশি দর পেয়েছিল আইনস্টাইনের ১৯২৮ সালে লেখা একটি চিঠি। দাম উঠেছিল ১ লক্ষ ৩ হাজার ডলার।

সুত্র- আনন্দবাজার পত্রিকা