ক্লাসে ফিরবে ভিকারুননিসার শিক্ষার্থীরা, আন্দোলন স্থগিত!

সময়ের কণ্ঠস্বর :: রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় ৬ দফা দাবির আন্দোলন স্থগিত করে বাড়ি ফিরেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার বিকালের দিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

তারা এও বলেছে, শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) থেকে পরীক্ষা দেবে শিক্ষার্থীরা এবং ক্লাসে ফিরে যাবে।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র আনুশকা রায় সাংবাদিকদের বলেন, শিক্ষকরা আমাদের সব দাবি পর্যায়ক্রমে মেনে নেয়া হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন। আমরা এখন ক্লাসে ফিরে যাব।

আনুশকা রায় আরো জানান, আমাদের কোনো নির্দোষ শিক্ষক ও শিক্ষার্থী যাতে এই ঘটনায় হেনস্থা না হয় আমরা সেটা চাই। ঘটনার একটি সুষ্ঠু তদন্ত চাই। দোষীরা যাতে বিচারের মুখোমুখি হয়।

এর আগে প্রায় দুই ঘণ্টা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষকেরা আলোচনা করেন। তবে দীর্ঘক্ষণ স্কুলের ভেতর থেকে বের না হওয়ায় বাইরে অপেক্ষমাণ অভিভাবকেরা জোর করে গেটের ভেতরে ঢুকে যান।

পরে শিক্ষার্থীরা বের হওয়া শুরু করে তবে বেশির ভাগ শিক্ষার্থী জানায়, ভেতর থেকে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে নিষেধ করা হয়েছে। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে।

তারা জানায়, তাদের ছয় দফা দাবির মধ্যে স্কুল কর্তৃপক্ষের আয়ত্ত্বের মধ্যে যেগুলো তা বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন শিক্ষকেরা। আর অন্যান্য দাবি যেগুলো আইনি প্রক্রিয়ায় চলছে তা নিয়ে শিক্ষার্থীদের বলার কিছু নেই। দাবি মেনে নেয়ার প্রতিশ্রুতির কারণেই শিক্ষার্থীরা শুক্রবার থেকে পরীক্ষা দেবে।

এর আগে দুপুরের দিকে গণমাধ্যমের কাছে অরিত্রীর মা-বাবার কাছে পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার ক্ষমা চান। তিনি বলেন, আমরা মর্মাহত, আমরা এ ঘটনায় জন্য অরিত্রীর বাবা-মায়ের কাছে ক্ষমা চাই।

অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় বৃহস্পতিবার তৃতীয় দিনের মতো বেশ কিছু ছাত্রী বেইলি রোডে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির মূল ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির বরখাস্ত শ্রেণি শিক্ষিকা হাসনা হেনাকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা মামলায় কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।