ভোট দেয়াই এখন ভোটারদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ : ড. বদিউল

সময়ের কণ্ঠস্বর :: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটারদের ভোট দেয়াই এখন বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার। বৃহস্পতিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে নির্বাচনী ইশতেহার: নাগরিক ভাবনা শীর্ষক সুজন আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

রাজনৈতিক দলগুলোর উদ্দেশ্যে নির্বাচনী ইশতেহার বিষয়ে বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ইশতেহারে এমন বিষয় থাকতে হবে যা সত্যিকার অর্থে জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়। ভোটের অধিকার নিশ্চিত হয়। এমন নির্বাচনী রূপরেখা থাকতে হবে যাতে আমাদের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা শক্তিশালী হয়।

সুজনের সভাপতি এম হাফিজ উদ্দিন খান বলেন, ‘যেসব আইন-কানুন রয়েছে তা যদি বাস্তবায়ন করা যায়, তাহলে আশা করা যায় সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব হবে।’

তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক দলগুলোর উচিত, তারা যে ইশতেহার ঘোষণা করবে ক্ষমতায় যাওয়ার পর তা যেন বাস্তবায়ন করা হয়। ক্ষমতায় যাওয়ার পর বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তারা তাদের অঙ্গীকার অধিকাংশই বাস্তবায়ন করে না।’

নির্বাচনী ইশতেহার বিষয়ে সুজনের লিখিত সুপারিশ উত্থাপন করে সংগঠনটির সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘সরকার ও দেশ পরিচালনায় জনগণের মালিকানা নিশ্চিত করতে হবে। রাজনৈতিক দলগুলোর ইতিহাস ও দল পরিচালনায় তাদের কার কী ভূমিকা তা তুলে ধরতে হবে। জনগণের অধিকার আদায়ে রাজনৈতিক দলগুলোর অর্জন তুলে ধরতে হবে। প্রয়োজনীয় নির্বাচনী সংস্কারের রূপরেখা দিতে হবে, নির্বাচনে প্রার্থীর যোগ্যতা-অযোগ্যতা, হলফনামার সংস্কার, হলফনামা যাচাই-বাছাই, নির্বাচনী ব্যয়ে স্বচ্ছতা এবং না ভোটের বিধান থাকাও উচিত।’

‘শাসন ব্যবস্থার একচ্ছত্র প্রাধান্যের অবসান করতে হবে। সাংবিধানিক সংস্কার, মেয়াদের সীমা নির্ধারণ, দ্বি-কক্ষবিশিষ্ট সংসদ, গণভোট, রিকল ব্যবস্থা, ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীদের সাংবিধানিক স্বীকৃতি ও ধর্মনিরপেক্ষতা নিশ্চিত করতে হবে’ বলেন সুজন সম্পাদক।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট গবেষক, কলামিস্ট ও সাংবাদিক সৈয়দ আবুল মকসুদ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারেরর সাবেক উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খান।