জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপাকে সংরক্ষিত মহিলা আসনে এমপি হিসেবে দেখতে চায় বগুড়াবাসী

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধিঃ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর। এরপর শপথ গ্রহণ করেছেন নবনির্বাচিত এমপি ও মন্ত্রীপরিষদের সদস্যরা। সংসদে ৫০জন সংরক্ষিত নারী সদস্য মনোনীত হবে দলীয়ভাবে। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে সংরক্ষিত মহিলা আসনে এমপি’ পদে ব্যাপক তোড়জোড় করছে বিভিন্ন প্রার্থীরা।

এরই ধারাবাহিকতায় বগুড়া-জয়পুরহাটবাসীর পক্ষ থেকে এবার সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি’র মনোনয়ন পেতে জোর চেষ্টা-তদবির চালিয়ে যাচ্ছে সুপ্রিম কোর্টের সহকারী এ্যাটর্নী জেনারেল ও বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী আইনজীবি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপা। এদিকে রুপা’র সংরক্ষিত আসনে এমপি মনোনয়ন প্রত্যাশী হওয়ার আনন্দে মেতে উঠেছে বগুড়া-জয়পুরহাটবাসী।

আইনজীবি জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপার পারিবারিকভাবেই রাজনীতির হাতেখড়ি। তিনি বগুড়ার ধুনট উপজেলার চৌকিবাড়ী ইউনিয়নের কৈগাতি গ্রামের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। বাবা রুহুল আমীন ছিলেন একজন শিক্ষক ও আওয়ামীলীগ নেতা হওয়ার সুবাদে ছাত্রজীবনেই জড়িয়ে পড়েন রাজনীতিতে। ছাত্র থেকে কর্মজীবন পর্যন্ত বর্তমানে আওয়ামীলীগের সক্রিয় রাজনীতিতে যুক্ত। সে বংশগত ভাবেই বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবর রহমানের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে দলীয় বিভিন্ন কর্মকান্ডে জড়িত রয়েছেন অদ্যবধি।

বগুড়া-জয়পুরহাট থেকে সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি মনোনয়ন প্রত্যাশী সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌস রুপা বলেন, ‘সদ্য সমাপ্ত এবারের সংসদ নির্বাচনে আমি বগুড়া-৫ (শেরপুর -ধুনট)আসন থেকে অংশ নিতে দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলাম। পরে দলের হাইকমান্ডের সিদ্ধান্ত মোতাবেক নির্বাচনে প্রার্থী না হয়ে দলের জন্য কাজ করেছি।’

ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। ‘১৯৮৫ সালে বগুড়ার সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজে অধ্যায়নরত এক হাজার সাতশ মেয়ে থাকাকালীন সময়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয় এবং পরে সম্পাদকীয় পদে দায়িত্ব পালন করে। এরপর ১৯৮৯ থেকে ’৯৪ সাল পর্যন্ত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখার সময় মুন্নুজান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে।

‘১৯৯৪ সালে আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হই। পরবর্তী সময়ে হাইকোর্টে এসে ২০০৬ সালে সুপ্রিম কোর্ট বারের নির্বাচনে সদস্য নির্বাচিত হয়। এছাড়াও ২০১০ সাল থেকে মহিলা আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনসহ আইন সহায়তা কমিটি ও ঘাতক দালাল নির্মূল কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি, লিগ্যাল এসিস্টেন্ট ও লিগ্যাল এইচ উপ-কমিটির সদস্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরিচালনা কমিটির টিম সদস্য কর্মরত ছিলেন বলে জানান ওই মহিলা আইনজীবি জান্নাতুল ফেরদৌসী রূপা।

এ ছাড়াও তৎকালীন ওয়ান ইলেভেনের সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের অসংখ্য নেতা কর্মীদের আইনি সহায়তা দিয়েছেন এবং জননেত্রী শেখ হাসিনাকে মুক্ত করার লক্ষে প্রত্যেকটি মুহুর্তে মাঠে আন্দোলন করে আসছে জানান এই মহিলা নেত্রী।

এদিকে একাদশ সংসদে জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপাকে সংরক্ষিত মহিলা আসনে এমপি হিসেবে মনোনয়ন দিয়ে বর্তমান সরকারের উন্নয়নমুলক কর্মকান্ডকে ত্বরান্বিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আকুল আবেদন করছেন বগুড়াবাসী।

Sharing is.

Share on facebook
Share with others
Share on google
Share On Google+
Share on twitter
Share On Twitter
  • You May Also Like: