সংবাদ শিরোনাম
খোলা মাঠে প্রকাশ্যে বৃদ্ধকে উলঙ্গ করে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল | ঝিনাইদহে পাট ক্ষেতে নিয়ে ৮ বছরের শিশুকে বৃদ্ধের ‘ধর্ষণ চেষ্টা’ | হাসপাতাল থেকে রোগী ফেরানো শাস্তিযোগ্য অপরাধ: তথ্যমন্ত্রী | নান্দাইলে বিটিভি’র শিল্পী টাপ্পিসহ আরো ৪ জন করোনায় আক্রান্ত | সরকার গণপরিবহন সিন্ডিকেটের কাছেই আত্মসমর্পণ করেছে: রিজভী | সব বাধা অতিক্রম করে দেশ এগিয়ে যাবে: প্রধানমন্ত্রী | করোনা চিকিৎসায় গেম চেঞ্জার ওষুধের অনুমোদন দিলো রাশিয়া | ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলছে গণপরিবহন | ‘১৫ জুনের মধ্যে হজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসতে পারে’- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী | করোনায় প্রথমবারের মতো এক রোহিঙ্গার মৃত্যু |
  • আজ ১৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আ’লীগ সভাপতি রুহুল আমিনকে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান সোনাগাজী জনসাধারণ

১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯ চট্টগ্রাম
feni

আবদুল্লাহ রিয়েল, ফেনী প্রতিনিধি: ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিনকে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান সোনাগাজীর জনসাধারণ। সোনাগাজীর বর্তমান অস্থিতিশীল রাজনীতীর শান্তি ফিরিয়ে আনতে তার বিকল্প নেই বলেও জানান সাধারন মানুষ।

আওয়ামীলীগের দূর দিনের কান্ডারি রাজনীতি থেকে উঠে আসা সোনাগাজী উপজেলার সর্বসাধারনের শ্রদ্ধেয় ব্যাক্তি রুহুল আমিন। শুরু থেকেই দলের জন্য শুধু দিয়ে গেলেন পাননি কিছুই। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে নিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালি করতে দিন-রাত দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। তাকে নিয়েই সোনাগাজীর সর্বত্র আলোচনার ঝড়। বর্তমানে তিনি সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়ীত্ব পালন করে যাচ্ছেন সততা ও নিষ্ঠার সহিত। বিরোধী দল সহ কোন ব্যক্তি বিশেষের সাথে কখনো মনমালান্য হয়নি তার। প্রতি ঘন্টায় ফেসবুকে একাদিক নেতা কর্মীসহ সাধারন মানুষও তাকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চেয়ে আকুতি জানান।

চায়ের দোকান থেকে শুরু করে অফিস আদালতেও তাকে নিয়ে হচ্ছে নানা আলোচনা সবার একটাই কথা আসন্ন উপজেলা নির্বাচন ২০১৯। সোনাগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে যেন তাকেই মনোনয়ন দেয়া হয়। একাধিক নেতা কর্মী জানান রুহুল আমিন রাজনীতিতে আসার পর সোনাগাজী আওয়ামীলীগের রাজনীতি শৃঙ্খলা ফিরে আসে। সকল নেতা কর্মীর সুখে দুঃখে তিনি অভিভাবকের দায়ীত্ব পালন করেন। নিজের কর্ষ্টাঅর্জিত টাকা খরচ করে নেতা কর্মীদের পিছনে ব্যায় করেন।

দীর্ঘ বছর রাজনীতিতে কখনো বিন্দুমাত্র কোন অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া যায়নি তার বিরুদ্ধে। সব সময় তিনি সোনাগাজীর শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য লড়ে গেছেন। দলের শৃঙ্খলা ও শান্তির কথা বিবেচনা করে কখনো চেয়ার দখলের প্রতিযোগিতায় নামেননি তিনি। তার হাত ধরে যারা রাজনীতিতে এসেছেন তারা অনেকেই ইউপি চেয়ারম্যান হয়েছে, ভাইস কিংবা দল থেকে পেয়েছেন নানান সুযোগ সুবিধা শুধু তিনিই রয়ে গেলেন অবহেলিত। তাই সোনাগাজী উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণের দাবি এবার উপজেলা নির্বাচনে এই ত্যাগি ব্যাক্তিকেই করা হোক নৌকার মাঝি।