বরগুনায় স্ত্রীর মামলায় স্বামীর দুই বছরের সাজা

৭:৫৬ অপরাহ্ণ | বুধবার, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯ বরিশাল

এম এ সাইদ খোকন, বরগুনা প্রতিনিধি: যৌতুক দাবি করে স্ত্রীকে নির্যাতন করার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে স্বামীকে দুই বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে আরো তিন মাসের হাজত ভোগের আদেশ দিয়েছে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। অপর চার আসামীকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন।

আজ বুধবার দুপুরে ওই ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ হাফিজুর রহমান এ রায় প্রদান করেন। দন্ডপ্রাপ্ত আসামী হল – বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার পশ্চিম সোনাখালী গ্রামের সচিন্দ্র চন্দ্র শীলের ছেলে সৌরভ চন্দ্র শীল। রায় ঘোষণার সময় সাজাপ্রাপ্ত আসামী আদালতে উপস্থিত ছিল।

আদালত সূত্রে জানা যায়, সাজাপ্রাপ্ত আসামীর স্ত্রী দুই সন্তানের জননী রেখা রাণী বাদী হয়ে ওই ট্রাইব্যুনালে ২০১৪ইং সালের ২৬ এপ্রিল তার স্বামী সৌরভ চন্দ্র শীল, শশুর সচিন্দ্র চন্দ্র শীল, শাশুরী সনাতন চন্দ্র শীল, দেবর সমীর চন্দ্র শীল ও মামা শশুর শংকর চন্দ্র শীলের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনের একটি মামলা দায়ের করে।

বাদী অভিযোগ করেন, সাজা প্রাপ্ত আসামী তার স্বামী সৌরভ চন্দ্র শীল দ্বিতীয় বিয়ে করেন। তারপরও ২০১৪ইং সালের ২৪ আগষ্ট দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। বাদী যৌতুক দিতে না পারায় তাকে সকল আসামী একত্রিত হয়ে নির্যাতন করে। ওই সময় আমতলী থানায় বাদীর মামলা নেয়নি। পরবর্তিতে বাদী ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন। ট্রাইব্যুনাল ৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করে ৪ জন আসামীকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন। বাদীর স্বামীকে দোষী সাব্যস্ত করে দুই বছর সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন।

বাদী বলেন, আমার নাবালক দুইটি সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ীতে ঝিয়ের কাজ করে বেচেঁ আছি। অনেক বার আমি স্বামীর কাছে যেতে চেয়েছি। আমার স্বামী আমাকে গ্রহণ করেনি। আসামী বলেন, আমাকে অন্যায় ভাবে সাজা দেওয়া হয়েছে। আমি উচ্চ আদালতে আপীল করবো।