এই সেই নরপশু

রাজবাড়ী প্রতিনিধি :: রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার নিজ মেয়েকে ১ বছর ধরে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগে রাজা মিয়া নামে এক বাবাকে আটক করে পুলিশ। শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নে নিজের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে তাকে আটকে গণধোলাই দেয় স্থানীয়রা। পরে সোপর্দ করা হয় পুলিশে।

এ ঘটনায় রাজা মিয়ার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেছেন ভুক্তভোগী মেয়েটির মা।

জানা যায়, রাজা মিয়া কুষ্টিয়াতে কাজ করে এবং সেখানেই থাকে। তার সঙ্গে থাকতো স্ত্রীও। তবে তারা মেয়েকে রেখে যান দাদির বাড়িতে। ওই বাড়িতে মেয়েকে দেখতে প্রায়ই যেতেন রাজা মিয়া। ওই সময় একদিন জোরপূর্বক নিজের ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণ করেন তিনি। এরপর প্রায় সময়ই তার উপর অমানবিক নির্যাতন চালাতেন বাবা।

গত বৃহস্পতিবার বাড়িতে এসে মেয়েকে আবারও ধর্ষণ করে বাবা কুষ্টিয়ায় চলে যায়। এদিন অসুস্থ হয়ে পড়লে বিষয়টি চাচা, দাদি ও স্থানীয়দের জানায় মেয়েটি। শনিবার বাবা রাজা মিয়া বাড়ি আসলে তাকে ধরে গণধোলাই দিয়ে পাট্টা ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যায় স্থানীয় জনতা। পরে থানায় ফোন দিয়ে রাজা মিয়াকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন পাট্টা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রব বিশ্বাস।

শিশুটির মা বলেন, আমার স্বামী অনেক দিন ধরে এই খারাপ কাজ করে আসছিল। আমরা বিষয়টি কখনো চিন্তাও করি নাই। কিন্তু মেয়েটি লোকলজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু বলেনি। এ ঘটনার পরে আমার কাছে সে সবকিছু বলেছে।

পাংশা থানা পুলিশের ওসি আহসান উল্লাহ সোমবার সকালে বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে রাজা মিয়া তার মেয়েকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। এলাকাবাসীর বেদম প্রহারে আহত রাজা মিয়াকে পুলিশের পাহারায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় ধর্ষণ মামলা করেছেন মেয়েটির মা। মামলা দায়েরের পর তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। রোববার নির্যাতিত শিশুটির বয়স নির্ধারণ ও ডাক্তারি পরীক্ষা রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে।

Sharing is.

Share on facebook
Share with others
Share on google
Share On Google+
Share on twitter
Share On Twitter
  • You May Also Like:
  • Top Views