নির্বাচন নিয়ে ফের মুখ খুললেন ড. কামাল

১০:১৬ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ
dr. kamal

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা :: ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ৩০ ডিসেম্বর যা ঘটেছিল তা প্রহসন। সরকার মানুষের সঙ্গে ভাঁওতাবাজি করেছে। অনেকেই বলেছেন এটা নাটক, এটা দুঃখজনক। এসব করার কোনো দরকার ছিল? মানুষ এটা নেবে না।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে গণতন্ত্রের মানসপুত্র হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর পুত্র প্রয়াত রাশেদ সোহরাওয়ার্দীর মৃত্যুতে আয়োজিত এক শোকসভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ড. কামাল বলেন, নির্বাচনের পর দিন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হয় ‘আমরা আরো ৫ বছর ক্ষমতায় থাকবো’। এ কথা বলে তারা ১৬ কোটি মানুষকে অপমান করেছে। এটা মেনে নেওয়া যায় না।

রাশেদ সোহরাওয়ার্দীর আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে কামাল হোসেন বলেন, বাংলাদেশের মাটিতে রাশেদ সোহরাওয়ার্দী স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। প্রতিবছরই আমরা তাঁকে শ্রদ্ধা জানাব ও স্মরণ করব। তিনি তরুণ সমাজের জন্য প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন।

এ সময় সদ্য কারামুক্ত ব্যারিস্টার মঈনুল ইসলাম বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণকে ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে। আসলে তারা এটা করে নিজেরা নিজেদের বঞ্চিত করেছে। এটা স্বাধীন দেশের মানুষের জন্য লজ্জার।

তিনি বলেন, রাজনীতি এখন ব্যবসা হয়ে গেছে। এটা রাজনীতি নয়। দেশের রাজনীতি শেষ হয়ে গেছে।

জেএসডি সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষ নেতা আ স ম আবদুর রব বলেন, রাশেদ সোহরাওয়ার্দীকে নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে, যার বাবা গণতন্ত্রের মানসপুত্র। গণতন্ত্র কোথায়? প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ৩০ ডিসেম্বরকে ঘৃণা এবং লজ্জা দিবস পালন করা উচিত।

রব বলেন, দেশের মানুষ এখন বিসর্জন না দিয়ে অর্জন করতে চায়। ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের পর মানুষ প্রতিবাদ করেনি জানিয়ে বলেন, ১৬ কোটি মানুষের বিবেককে হত্যা করল, গণতন্ত্র হত্যা করল, দেশের একটা মানুষ প্রতিবাদ করল না কেন?’

এতে আরো বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মঈন খান, গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, প্রেসেডিয়াম সদস্য মোকাব্বির খান, আমসা আমিন ও জগলুল হায়দার আফ্রিক প্রমুখ।