চাটমোহরের রাস্তায় বেপরোয়া মোটরসাইকেল দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে বখাটেরা

১১:৩৪ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯ রাজশাহী
pabna

পাবনা প্রতিনিধি :: পাবনার চাটমোহর পৌর সদর সহ উপজেলার বিভিন্ন হাইওয়ে রাস্তায় প্রতিদিন প্রায় শতাধিক বখাটে বেপরোয়া হোন্ডা ড্রাইভ করছে। উঠতি বয়সী কিশোর, যুবক সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কিছু উচ্ছৃঙ্খল কর্মীরা এমন বেপরোয়া বাইক চালিয়ে পথচারি সহ স্কুল কলেজ গামী ছাত্র ছাত্রীদের করছে আহত। এদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না শিশু সহ বৃদ্ধারাও। এমন ভীতিকর পরিস্থিতি থেকে উত্তোরনে প্রশাসনের কোন নজরদারী নেই।

জানা গেছে, চাটমোহর উপজেলার এক শ্রেণির উচ্ছৃঙ্খল যুবকরা মোটরবাইকে চড়েই বেপরোয়া হয়ে উঠছে। পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা সহ উপজেলার বিভিন্ন জন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় খুব দ্রুত গতিতে আক্রমনত্বক ভাবে বাইক চালিয়ে জনমনে আতংক সৃষ্টি করছে এরা। এমন বেপরোয়া গতিতে বাইক চালিয়ে নিজে যেমন দূর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে তেমনি পথচারিদেরও প্রতিনিয়িত করছে আহত। বাইক রেসের মত চালকদের হেলে দুলে চালানোর দৃশ্য দেখে মানুষ হতবম্ভ হয়ে যান। বেশিরভাগ এসব বাইকাররা সমাজের সম্ভ্রান্ত পরিবারের বখাটে সন্তান হওয়ায় তাদের কেউ কিছুই বলে সাহস পায়না। এদের অধিকাংশরই নেই যান চলাচলের ড্রাইভিং লাইসেন্স। এরা পুলিশ চেকপোষ্ট ফাঁকি দিয়ে এবং রাজনৈতিক বংশ পরিচয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। কেউই এদের ব্যাপারে মুখ খুলে কিছু বলে না, প্রতিবাদও করেনা। আড়ালে তাদের ঘৃণা আর অভিসম্পাত করেই নীরব থাকে ভুক্তভোগী মানুষ।

গত সপ্তাহে উপজেলার রেলবাজার এলাকার রবিউল ইসলাম রবির ছেলে হৃদয় হোসেন (২৫) এমন বেপরোয়া হোন্ডা ড্রাইভ করতে গিয়ে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছে তার হোন্ডায় থাকা ছোট ভাই রানা হোসেন (৮)। প্রায় প্রতিদিনই উপজেলার কোথাও না কোথাও বাইকার দূর্ঘটনায় আহতের ঘটনা ঘটলেও থানা পুলিশ কেন এদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করছে না বিষয়টি অনেকেরই বোধগম্য নয়।

চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ নাসীর উদ্দিন বলেন, বিষয়টি সত্যিই উদ্বেগজনক হয়ে দাঁড়িয়েছে। থানা পুলিশের পক্ষ থেকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রায়ই চেকপোষ্ট বসিয়ে এসকল বখাটে ও লাইসেন্স বিহীন মোটরসাইকেল আটক করে মামলা দেয়া হচ্ছে। অধিকাংশ এসকল হোন্ডা চালকরা চেকপোষ্ট ফাঁকি দিয়ে পার পেয়ে যাচ্ছে। থানা পুলিশ এসকল চালকদের বিরুদ্ধে আগের চাইতে আরো কঠোর অভিযান পরিচালনা করবে।