একি হাল পৌর রাস্তার!

২:০১ অপরাহ্ণ | শনিবার, মার্চ ৯, ২০১৯ চট্টগ্রাম
Feni Porosava Rood

আবদুল্লাহ রিয়েল,ফেনী প্রতিনিধি : দুপাশে বিল মাঝ দিয়ে চলে গেছে যে রাস্তা তা দেখে বুঝার উপায় নেই স্থানীয়রা ব্যবহার করেন এ রাস্তাটি! তবে কাগজে কলমে পৌর এলাকার রাস্তা এটি। দিনের পর দিন কোন কাজ না হওয়াতে ব্যবহার অনুপযোগী এ রাস্তা দিয়েই চলতে হয় ফেনীর ১৫নং ওয়াডের বাসিন্দাদের!

ফেনী পৌরসভার ১৫নং ওয়ার্ড পূর্ব-মধুপুরের সড়কের বাস্তব চিত্র হলো খানাখন্দে ভরা সড়কগুলো। গ্রামবাসীর অভিযোগ—পৌর এলাকায় হলেও এ ওয়ার্ডের একাধিক সড়কে দীর্ঘ ৩০ বছরেরও লাগেনি উন্নয়নের ছোঁয়া। একমুঠো মাটি দেয়া হয়নি সড়কগুলোতে। পৌর কর পরিশোধ করে কি মানের নাগরিক সুবিধা ভোগ করছি তার বাস্তব চিত্র ফুটে উঠবে আমাদের ওয়ার্ডের অনেক রাস্তার দিকে তাকালে।

সরেজমিন দেখা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লালপুল সেতুর পশ্চিম পাশ ধরে শুরু হয় ফেনী শহরের ১৫নং ওয়ার্ড পূর্ব মধুপুর। এ এলাকার মোট জনসংখ্যা প্রায় ১০ হাজার। মোট ভোটার ২ হাজার ৩৪৫ জন। মহাসড়ক থেকে প্রবেশ করতে অবহেলিত এ ওয়ার্ডটির বিভিন্ন সড়ক চোখে পড়ে। এখানে ৩০ বছরেও সংস্কার হয়নি আবদুস ছামাদ সড়ক, হাজী মকলেছুর রহমান সড়ক, খোন্দকার পাড়া সড়ক।

এলাকাবাসীর অভিযোগ,এখানকার সড়কগুলো যুগ যুগ ধরে অবহেলিত। এ গ্রামের নারী অধিবাসী রাহেলা বেগম (৬৫) বলেন, সড়কগুলো দেখলে মনে হয় এটি কোনো পৌর এলাকা নয়, যেন জনমানবশূন্য দুর্গম চরাঞ্চল ও পরিত্যক্ত সড়ক।

ফেনী সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী নাজমুন নাহার জানান, বর্ষাকালে এসব রাস্তায় হাঁটুপানি জমে থাকে। ফলে আমাদের কলেজে যেতে কষ্ট হয়। এ গ্রামের অধিবাসী গোলাম নবী জানান, খোন্দকার পাড়ায় সবটাই অবহেলিত। এখানে সেতু আছে, রাস্তা নেই। পূর্ব মধুপুরের খোন্দকার পাড়ায় এখন সাইকেল চালানোও কষ্টকর।

স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর আবু ইউছুফ ভূঞা বাদল জানান, অবহেলিত সড়কগুলো উন্নয়ন টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সড়কের ইট চুরি ও ইট ভাটার ট্রাক্টর চালানোর কারণে এ করুন হাল হয়েছে সড়কগুলোর।