সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জামিন পেলেও মুক্তি পাচ্ছেন না সাবেক এমপি রানা

৯:৫৬ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, মার্চ ১৫, ২০১৯ স্পট লাইট

সময়ের কণ্ঠস্বর :: টাঙ্গাইলের সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হোসেন হত্যা মামলায় হাইকোর্ট থেকে ছয় মাসের জামিন পেয়েছেন একই জেলার আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা।

বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয়। এদিকে টাঙ্গাইলের দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় এর আগে হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলেও একই দিন চেম্বার আদালতে ওই আদেশ স্থগিত হয়ে গেছে। এর ফলে রানা আপাতত কারাগার থেকে মুক্তি পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা।

এদিন হাইকোর্টে রানার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জানান, মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হত্যা মামলায় রানাকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিনের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করা হবে।

অন্যদিকে সাবেক দুই যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুনকে হত্যার অভিযোগে রানার বিরুদ্ধে করা মামলায় গত ৬ মার্চ তাকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছিল হাইকোর্ট। এরপর হাইকোর্টের ওই আদেশ স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করলে বৃহস্পতিবার শুনানি নিয়ে চেম্বার আদালতের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান তা মঞ্জুর করেন। ওই জামিনাদেশ চার সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে বলে জানান বশির উল্লাহ।

প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের টাঙ্গাইল জেলা কমিটির সাবেক সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদকে ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি গুলি করে হত্যা করা হয়। এই মামলায় রানাকে ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর কারাগারে পাঠান আদালত। ২০১৭ সালের ১৩ এপ্রিল এই মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলেও রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে তা আপিল বিভাগে আটকে যায়।

অন্যদিকে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়ন যুবলীগের নেতা শামীম ও মামুন ২০১২ সালের ১৬ জুলাই নিখোঁজ হলে স্থানীয় থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। এরপর নিখোঁজ মামুনের বাবা ২০১৩ সালের ৯ জুলাই টাঙ্গাইল আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে ওই বছরের ২১ সেপ্টেম্বর মামলাটি তালিকাভুক্ত করে পুলিশ। এ মামলায় গ্রেপ্তার একাধিক আসামির জবানবন্দিতে বেরিয়ে আসে রানার নির্দেশেই তাদের হত্যা করা হয়েছে।