তিক্ত স্মৃতি নিয়ে দেশের পথে টাইগাররা

১:২০ অপরাহ্ণ | শনিবার, মার্চ ১৬, ২০১৯ খেলা

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- সব কিছু ঠিক থাকলে এই সময়ে শেষ টেস্টে মাঠেই ব্যস্ত থাকার কথা বাংলাদেশের। কিন্তু সব কিছু যে ঠিক নেই পুরো পৃথিবীই জানে। ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে হামলার ২৪ ঘণ্টা না পেরুতেই তাই দেশের পথে রওয়ানা হয়েছে বাংলাদেশ দল।

শনিবার (১৬ মার্চ) স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ও বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টায় সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের একটি বিমানে দলের ক্রিকেটারসহ মোট ১৯ জন রওনা করেছেন।

বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার খালেদ মাসুদ পাইলট সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘শনিবার ভোর ৫টায় রওনা দিয়ে আশা করি বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ৪০ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছাব আমরা। আপাতত ১৯ জন ফিরছি আমরা। কোচিং স্টাফদের কেউ কেউ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও দক্ষিণ আফ্রিকায় যাচ্ছেন। সেখান থেকে দ্রুত সময়ে তাদের টিকেটের ব্যবস্থা করা হবে।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে একটি পোস্ট করেন বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। নিজের একটি ছবি পোস্ট করে সেখানে তিনি লেখেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ্‌ ইনশাল্লাহ শেষমেশ আমরা দেশে ফিরছি।’

গতকাল ক্রাইস্টাচার্চের মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে গিয়ে অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান ক্রিকেটাররা। এক উগ্র শ্বেতাঙ্গ বন্দুকধারীর হামলায় ওই সময় মসজিদের ভেতর থাকা ৪৯ জনের প্রাণহানি ঘটে। দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে প্রথমে টিম বাসের ভেতরে ও পরে স্টেডিয়ামে ঢুকে জীবন বাঁচান বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। এর পরপরই নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে তৃতীয় টেস্ট বাতিল করার ঘোষণা দেওয়া হয়। বিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়, দ্রুততম সময়ের মধ্যে দেশে ফেরানো হবে তামিম-মুশফিকদের।

জানা গেছে, ঘটনার আকস্মিকতার পর হোটেলবন্দি ছিলেন ক্রিকেটাররা। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড তাদের ফেরাতে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়। সরকারি পর্যায়েও যোগাযোগ করেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। টিম ম্যানেজার খালেদ মাসুদ পাইলট জানান, টিকিট পেলেই তারা দেশে ফিরবেন। প্রাথমিকভাবে কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে ভিন্ন ভিন্ন ফ্লাইটে ওঠার কথা বললেও একইসঙ্গে ফিরছেন সবাই। বিশেষ ব্যবস্থায় টিকিট পেয়েছেন তামিম-মুশফিকরা।

কোচিং স্টাফসহ ১৯ জনের দল একসঙ্গে একই ফ্লাইটে দেশে ফিরছেন। তবে প্রধান কোচ স্টিভ রোডস, পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ ও ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়েন ফিরে যাবেন নিজ নিজ দেশে।