নৌকার বিজয়ে কাঁটা আ’লীগের বিদ্রোহীরা

১:০১ অপরাহ্ণ | বুধবার, মার্চ ২০, ২০১৯ চট্টগ্রাম
aling

মু.ওয়াছীঊদ্দিন, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: উপকূলীয় জেলা লক্ষ্মীপুরের পাঁচটি উপজেলায় আগামী ২৪ মার্চ (রবিবার) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে নৌকার বিজয়ে পথের কাঁটা হয়ে দাড়িয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। যদিও নৌকার প্রার্থীরা শিক্ষিত, সৎ ও ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি।

এদিকে গত ৮ মার্চ (শুক্রবার) প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই মাঠে জোরালোভাবে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। এ প্রচারণায় অনেকটাই এগিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। তবে বিভিন্ন দলীয় নেতাকর্মীদের দিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা এমন প্রচারণা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতারা।

লক্ষ্মীপুর সদরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম চৌধুরী দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। এদিকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করছে, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগ সভাপতি এ কে এম সালাহ্ উদ্দিন টিপু (দোয়াত কলম), সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মহি উদ্দিন বকুল (কাপ-পিরিচ) ও বিএনপি নেতা ওয়াহিদুর রহমান (আনারস)। এখানে ভাইস চেয়ারম্যন পদে ১০ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৫ জন।

রায়পুরে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মামুনুর রশিদ। নৌকার এই মাঝির বিপরীতে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আলতাফ হোসেন হাওলাদার (মোটর সাইকেল)। এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে ৮ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যার পদে ৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন মনির হোসেন চৌধুরী। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার বিপরীতে দলীয় কোন প্রার্থী না থাকলেও রয়েছেন ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মোঃ সিরাজ মিয়া (আম)। এখানে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২ জন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কোন প্রার্থী না থাকায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন সুরাইয়া আক্তার শিউলি।

রামগতি উপজেলা নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল ওয়াহেদ। তার বিপরীতে নির্বাচন করছেন বিকল্পধারার মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ (আনারস) ও শরিফ উদ্দিন আজাদ (কাপ-পিরিচ)। এখানে ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৪ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ৩ জন।

কমলনগরে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন সভাপতি এ কে এম নুরুল আমিন। তার বিপরীতে নির্বাচন করছেন উপজেলা ১৪ দলীয় জোটের সভাপতি অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল হক (কাপ-পিরিচ), উপজেলা যুব লীগের আহ্বায়ক মেজবাহ উদ্দিন আহম্মেদ বাপ্পি (দোয়াত কলম), যুগ্ন আহ্বায়ক আহছান উল্লাহ হিরণ (আনারস), জেলা স্বেচ্ছসেবক লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবদুর রহমান (হেলিকপ্টার), সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নুরুল আমিন (মটর সাইকেল) ও জাতীয় পার্টি(মতিন) এর আবদুর রাজ্জাক (ঘোড়া)।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক আওয়ামী লীগ নেতা বলেন – কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সৎ, যোগ্য, শিক্ষিত ও ক্লিন ইমেজের ব্যক্তিকেই মনোনয়ন দিয়েছে। কিন্তু কিছু নেতা মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নিজেদের স্বার্থ ও কোন্দল সৃষ্টির লক্ষ্যেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করেছেন।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন বলেন, এখানকার পাঁচটি উপজেলার নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগসহ সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। নৌকার বিজয়ের লক্ষ্যেই প্রতিদিনই দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা করছেন তারা। অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিভিন্ন দলীয় লোকজন দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের নির্বাচনী প্রচারণা।

তিনি আরো বলেন, দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে কোন নেতাকর্মী অবস্থান নিলেই তাকে বহিস্কার করা হবে। ইতিমধ্যেই কয়েকজন নেতাকর্মীকে বহিস্কার করা হয়েছে। তবে তিনি জেলার পাঁচটি উপজেলায় নৌকা মার্কা বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয় লাভ করবেন বলেও আশা ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, লক্ষ্মীপুরের পাঁচটি উপজেলায় ১২ লাখ ৩৪ হাজার ৬৯৬ জন ভোটার রয়েছে। যার মধ্যে পুরুষ ৬ লাখ ২৪ হাজার ৭১৮ ও মহিলা ভোটার ৬ লাখ ৯ হাজার ৯৭৮ জন। এখানকার ৫৮ টি ইউনিয়ন ও ৪ টি পৌরসভায় মোট ভোট কেন্দ্র রয়েছে ৪৫৮টি।