সংবাদ শিরোনাম
গরমে ভোগান্তি চরমে, শুক্রবার আরও বাড়তে পারে তাপমাত্রা! | নোবিপ্রবিতে ২য় আন্তর্জাতিক ফিসারিজ শীর্ষক সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত | ‘একটি ছবি তোলার জন্য অনেক সময় জীবনের ঝুঁকি নিতে হয়’- তথ্যমন্ত্রী | আমতলীতে জমিজমার বিরোধকে কেন্দ্র করে এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে মারধর | জন্মদিন ভুলে যাওয়ায় বাবা-মায়ের সঙ্গে অভিমান করে শিক্ষিকার আত্মহত্যা! | শপথ পড়লেন আমতলী উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা | হবিগঞ্জ বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন | ধান ফলায় কৃষক, মুনাফা লুটে মজুতদার ও মধ্যস্বত্ত্বভোগীরা! | কক্সবাজারে বিল বকেয়া থাকার অভিযোগে কয়েকটি মসজিদে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন | চিকিৎসককে লাখ টাকা জরিমানা করলো ভ্রাম্যমাণ আদালত! |
  • আজ ১২ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মিরপুরে তুরাগ তীরে উচ্ছেদ অভিযান

১:১৪ অপরাহ্ণ | বুধবার, মার্চ ২০, ২০১৯ স্পট লাইট
turag

রাজু আহমেদ, ষ্টাফ রিপোর্টার: বুড়িগঙ্গা ও তুরাগ নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দ্বিতীয় পর্বের তৃতীয় পর্যায়ের উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

এরই ধারাবাহিকতায় আজ বুধবার সকাল ৯টায় বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে তুরাগ তীরের মিরপুর বেড়ি বাঁধের জহুরাবাদ এলাকা থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে।

উচ্ছেদ অভিযানে স্থানীয় কাউন্দিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম খান শান্ত বাধা দিলে তাকেও আটক করেছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। তৃতীয় পর্যায়ের উচ্ছেদ অভিযান চলবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। আগামী ২৫, ২৭ ও ২৮ মার্চ চালানো হবে চতুর্থ ও শেষ পর্যায়ের অভিযান।

বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে গতকাল অভিযানের ১ম দিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত আমিনবাজার ব্রিজ থেকে মিরপুর জহুরাবাদ পর্যন্ত তুরাগের উভয় তীরে উচ্ছেদ কার্যক্রম চালিয়ে ১৭টি পাকা ভবন, ৩৬টি আধাপাকা ভবন, ১৪টি সীমানা প্রাচীর ও ২৫০টি টং দোকান মিলিয়ে মোট ৩১৭টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। উচ্ছেদ হওয়া পাকা ভবনের মধ্যে রয়েছে দুটি দোতলা ও ১৫টি একতলা ভবন। দুই একর তীরভূমি দখলমুক্ত করা হয় এই অভিযানে।

এর আগে ১৯ দিন অভিযান চালিয়ে বুড়িগঙ্গা ও তুরাগতীর থেকে দুই হাজার ৩৪৩টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। অভিযানে এখন পর্যন্ত দখলমুক্ত করা জায়গার পরিমাণ প্রায় ৫৪ একর। এ সময় নিলামে জব্দকৃত সম্পদ বিক্রি করা হয়েছে ৩১ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। এ ছাড়া একজনকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়াসহ বিভিন্ন জনকে এক লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।