সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৯ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আন্দোলন চলাকালীন ছাত্রীর পায়ে গাড়ি তুলে দিলেন শিক্ষক!

৯:৪৭ অপরাহ্ণ | বুধবার, মার্চ ২০, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ
Nirapod

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক:নিরাপদ সড়কের দাবীতে আন্দোলন চলাকালীন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রীর ওপর গাড়ি তুলে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক মোফাজ্জল হোসেন! আহত দুই ছাত্রীর একজনকে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ও পরে অ্যাপোলো হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুর দুইটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রধান ফটকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহতের সহপাঠীরা জানান, পুরান ঢাকার রায় সাহেব বাজার মোড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়ক আন্দোলন কর্মসূচি শেষ করে ক্যাম্পাস চলে আসেন। পরে ক্যাম্পাস থেকে টিএসসিতে যাওয়ার সময় প্রধান ফটকের সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক মোফাজ্জল হোসেনের গাড়ি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থী মাস্টার্স প্রথম সেমিস্টারের ইমা আক্তার ও স্নাতক প্রথম বর্ষের আয়েশা মোমেনাকে ধাক্কা দেয়। ওই শিক্ষক নিজে গাড়ি চালাচ্ছিলেন।

গাড়ির ধাক্কায় ইমা আক্তার দূরে ছিটকে পড়েন। অপরদিকে মোমেনা গাড়ির সামনে পড়ে গেলে তার পায়ের ওপর দিয়ে চাকা চলে যায়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত অন্য শিক্ষার্থীরা গাড়িটি আটক করে আহত আয়েশাকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য ওই শিক্ষককে অনুরোধ করেন। কিন্তু মোফাজ্জল হোসেন তাতে অসম্মতি জানান। এর এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা গাড়িটি ভাঙচুর করেন।

পরে আয়েশাকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সে করে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য অ্যাপালো হাসপাতালে নেওয়া হয়।

আহত অপর শিক্ষার্থী ইমা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা দুই জন ক্যাম্পাস থেকে বের হওয়ার সময় একটি প্রাইভেট কার আমাদের ধাক্কা দেয়। আমি দুরে ছিটকে পরলেও আয়েশার ওপর পায়ের ওপর দিয়ে গাড়ি চলে যায়। পরে আহত আয়েশাকে ওই শিক্ষকের গাড়িতে নিতে চাইলে তিনি রাজি হননি।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর নূর মোহাম্মদ বলেন, ‘আহত শিক্ষার্থী আয়েশাকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতাল থেকে অ্যাপোলো হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। আয়েশার চিকিৎসার দায়িত্ব শিক্ষক মোফাজ্জল হোসেন নিয়েছেন।

এ বিষয়ে আইন বিভাগের শিক্ষক মোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘ব্রেক কাজ না করার জন্য দুর্ঘটনাটা ঘটে। আমি আহত শিক্ষার্থীর সম্পূর্ণ চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছি।