এরদোগানের কঠোর সমালোচনায় অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রী

১২:৪৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, মার্চ ২১, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা সম্পর্কে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোগানের মন্তব্যকে ‘হঠকারী’ ও ‘অত্যন্ত আক্রমণাত্মক’ আখ্যায়িত করে এর তীব্র সমালোচনা করেছেন অস্টেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

তিনি সতর্ক করে বলেন, এরদোগানের এ ধরনের মন্তব্যের কারণে দুদেশের মধ্যে সম্পর্কের বিষয়টি নিয়ে তিনি নতুন করে বিবেচনা করতে বাধ্য হবেন।

রোববার টেকিরডাগ শহরে নির্বাচনী সমাবেশে তুরস্কের নেতা এরদোগান নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদের ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার ভিডিও ফুটেজ দেখান।

তিনি এই হামলার ঘটনাকে তুরস্ক ও ইসলামের ওপর হামলা হিসেবে উপস্থাপন করেন। ওই কাপুরুষোচিত জঘন্য হামলায় মসজিদে নামাজ পড়া অবস্থায় ৫০ জন নিহত হন।

অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রী ওই হামলাকারীর মতো মনোভাবাপন্ন মুসলিম বিরোধী অস্ট্রেলীয়দেরও সতর্ক করেন। যে এ ধরনের ঘটনা ঘটাবে গ্যারিপলির পূর্বপুরুষদের মতো তাকেও ‘কফিনে উঠতে হবে’। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সেটি ছিল একটি রক্তাক্ত অধ্যায়।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তুর্কি বাহিনীর সঙ্গে সমুদ্র তীরবর্তী শহরটিতে ভয়াবহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ৮ হাজারের বেশি অস্ট্রেলীয় নাগরিক প্রাণ হারায়। অস্ট্রেলিয়ার ইতিহাসে এটি একটি বিশেষ মুহূর্ত হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে।

মরিসন বলেন, ‘তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগান যে মন্তব্য করেছেন আমি তাকে অস্ট্রেলিয়ার জন্য অত্যন্ত আক্রমণাত্মক মনে করছি। ঠিক এই স্পর্শকাতর ও উত্তেজনাপূর্ণ মুহূর্তে এ ধরনের মন্তব্য অত্যন্ত হঠকারিতামূলক ও বিপজ্জনক।’

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার ভয়ংকর ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। কোন কোন গণমাধ্যম এই ভিডিওটি দেখানোর পর এর তীব্র সমালোচনা হয়েছে।

কিন্তু তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়িপ এরদোয়ান বিভিন্ন সভা-সমাবেশে এই ভিডিওটি দেখান। এরদোয়ান ভিডিওটির যে অংশটি দেখিয়েছেন, তাতে দেখা যায়, হামলাকারী মসজিদে ঢুকছে এবং গুলি চালাতে শুরু করেছে।