সংবাদ শিরোনাম
গরমে ভোগান্তি চরমে, শুক্রবার আরও বাড়তে পারে তাপমাত্রা! | নোবিপ্রবিতে ২য় আন্তর্জাতিক ফিসারিজ শীর্ষক সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত | ‘একটি ছবি তোলার জন্য অনেক সময় জীবনের ঝুঁকি নিতে হয়’- তথ্যমন্ত্রী | আমতলীতে জমিজমার বিরোধকে কেন্দ্র করে এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে মারধর | জন্মদিন ভুলে যাওয়ায় বাবা-মায়ের সঙ্গে অভিমান করে শিক্ষিকার আত্মহত্যা! | শপথ পড়লেন আমতলী উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা | হবিগঞ্জ বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন | ধান ফলায় কৃষক, মুনাফা লুটে মজুতদার ও মধ্যস্বত্ত্বভোগীরা! | কক্সবাজারে বিল বকেয়া থাকার অভিযোগে কয়েকটি মসজিদে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন | চিকিৎসককে লাখ টাকা জরিমানা করলো ভ্রাম্যমাণ আদালত! |
  • আজ ১২ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

খাবার পর চা? মানে কি জানেন?

২:২৩ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, মার্চ ২৫, ২০১৯ লাইফস্টাইল

লাইফস্টাইল ডেস্ক :: প্রায় সব মানুষই চা পান করে থাকেন। কেউ কেউ এক কাপ গরম চা পান করার জন্য ব্যাকুল হয়ে পড়েন। তবে চা পানে সাবধান বাণী উচ্চারণ করেছেন গবেষকরা।

ভরা পেটে চা না খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তারা। পেট পুরে খাওয়ার পরপরই কিছু মানুষের চা পানের একটা বদভ্যাস আছে।

জিনিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেট ভরা থাকলে বা ভারী খাবারের পর অনেকের ঘুম ঘুম ভাব হয় কিংবা আলস্য চলে আসে। অনেকে ভারী খাবার খেয়ে ঝিমোতে শুরু করেন।

এতে বলা হয়েছে, এই আলস্য ভাব দূর করতে কেউ এক কাপ চা নেন কিংবা সিগারেটে সুখ টান দেন। তারা ভাবেন, এতে খাবার হজম হবে কিংবা ঝিমুনি-ভাব দূর হবে। কিন্তু আসলে এ অভ্যাস স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

ভারী খাবারের পর পাঁচটি জিনিস করতে নিষেধ করেছেন গবেষকরা। এগুলো হলো ঘুমানো, ধূমপান, গোসল, ফল খাওয়া ও চান পান করা।

গবেষকরা বলেন, চা-পাতা অ্যাসিডসমৃদ্ধ, যা হজম প্রক্রিয়ার ওপর প্রভাব ফেলতে পারে। ভারী খাবারের পরপরই চা পান শরীরের আয়রন বা লোহার শোষণ প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে। ভারী খাবার খাওয়ার এক ঘণ্টা আগে বা পরে চা পান করা যেতে পারে, কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে নয়।

খাবার পরপরই ঘুমিয়ে পড়লে খাবার ঠিকমতো হজম হয় না। ঘুম থেকে উঠেও পেট ভর্তি মনে হয়। ভারী খাবারের পর ধূমপান করা মানে ১০টি সিগারেট খাওয়ার সমান ক্ষতি।

ক্ষতির কথা বিবেচনা করে ধূমপান থেকে বিরত থাকা উচিত। খাবারের পরপরই গোসলে যাওয়াও ঠিক নয়। এতে খাবারের হজম প্রক্রিয়ায় দেরি হয়। গোসলের সময় পেটের চারপাশের রক্তপ্রবাহ শরীরের অন্য অংশে চলে যায়। ফলে বিপাক প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হতে পারে।

অনেকে বলে থাকেন, ভারী খাবারের আগে ফল খাওয়া উচিত। কারণ ফল হজম হয় সহজে। ভারী খাবারের এক ঘণ্টা আগে বা খাবারের দুই ঘণ্টা পরে ফল খাওয়া উচিত। ভারী খাবারের পরপরই ফল খেলে হজম প্রক্রিয়ায় বাধাগ্রস্ত হয়।