অবশেষে স্বামীর বিরুদ্ধে প্রথম স্ত্রীর মামলা নিয়ে মুখ খুললেন সালমা!

১:৩৩ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, মার্চ ২৬, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক :: প্রথম সংসার ভেঙে যাওয়ার পর গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের ছেলে সানাউল্লাহ নূরী সাগরকে বিয়ে করেন সংগীতশিল্পী ও ক্লোজআপ ওয়ান তারকা মৌসুমী আক্তার সালমা। তার স্বামী বর্তমানে লন্ডনে ‘বার অ্যাট ল’ পড়ছেন। সবই ঠিকঠাক যাচ্ছিল তাদের। এর মধ্যেই সাংসারিক জীবন নিয়ে নতুন খবরের শিরোনাম হলেন সালমা।

তার স্বামী সাগরের বিরুদ্ধে মামলা করলেন সাবেক স্ত্রী’র মা। নারী ও শিশু নির্যাতনের অভিযোগে এই মামলায় আসামি করা হয়েছে সাগরের বাবা সাখাওয়াত হোসেন এবং মা সুরাইয়াকেও। গত বছরের ১৯ নভেম্বর কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এই মামলা দায়ের করেছেন সাগরের প্রথম স্ত্রী পুষ্মীর মা দিলারা খানম। মামলা নম্বর ২৫৪। এরই মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও জারি হয়েছে।

এমনকি গ্রেপ্তারের জন্য ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানায় পরোয়ানা পাঠিয়েছেন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ এ.এইচ.এম মাহমুদুর রহমান।

এ ঘটনার পর জানা যায়, সালমা সাগরের দ্বিতীয় স্ত্রী। ২০১৪ সালের ৩ জুন কক্সবাজারের দিলারা খানমের মেয়ে তাসনিয়া মুনিয়াত (পুষ্মী)’কে বিয়ে করেছিলেন সাগর। ২০ লাখ টাকা কাবিনে বিয়ে হয় তাদের। ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের শিক্ষার্থী তাসনিয়া মুনিয়াত (পুষ্মী)কে বিয়ের পর থেকে বিভিন্নভাবে যৌতুকের জন্য সাগর চাপ দিতে এবং শারীরিক নির্যাতন করতে থাকেন।

পুষ্মীর মা দিলারা খানম তিন কিস্তিতে ১০ লাখ টাকা প্রদান করেন। সেই স্ত্রীর টাকায় লন্ডনে পড়তে যান সাগর। কিন্তু লন্ডনে গিয়ে তার স্বভাব পাল্টে যায়। এমন অভিযোগ এনে মামলাটি করেন সাগরের প্রথম স্ত্রীর মা।

এ বিষয়ে কণ্ঠশিল্পী সালমা দাবি করেন, আমার স্বামী ও আমাকে হয়রানি করতেই এই সাজানো মামলা। সাগর আগেও যে বিয়ে করেছিলেন এবং সেই স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়েছেন, এ বিষয়ে সব জেনেই সাগরকে বিয়ে করেছেন বলে জানান সালমা।

তিনি সাগরের প্রথম স্ত্রী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন, আমার স্বামীর টাকার দিকেই হয়তো তাদের নজর। সে জন্য এই মামলা। যদি কিছু টাকা হাতিয়ে নেয়া যায়।

অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে এ মামলা করা হয়েছে দাবিতে তিনি যুক্তি দেখান, এক বছর আগেই ওই নারীকে ডিভোর্স দিয়েছে সাগর। আর ডিভোর্সের এক বছর পর মনে হলো নির্যাতনের কথা, মামলার কথা?

মিডিয়ার কভারেজ পেয়ে আলোচনায় আসতেই তারা মিথ্যা মামলা দিয়েছেন মন্তব্য করে সালমা জানান, কোনো ঘটনায় আমাকে জড়ানো মানে সেটি গণমাধ্যমে আলোচনায় আসা। একজন তারকার বিয়ে-সংসার নিয়ে মুখরোচক কিছু তথ্য পাওয়া গেলে সেটি লুফে নেয় সবাই। তাই আমার ইমেজে আঘাত করে কোনো উদ্দেশ্য হাসিল করতেই এটি ওই নারী ও তার পরিবারের পরিকল্পিত মামলা।

একজন মানুষ লন্ডনে বসে কীভাব বাংলাদেশে নারী নির্যাতন করতে পারে, প্রশ্ন করে সালমা বলেন, আমার স্বামী নিজে আইনের ছাত্র। সে ভালো করেই জানে এমন মিথ্যা মামলার জবাব কীভাবে দিতে হয়। আইনিভাবেই বিষয়টির মোকাবেলা হবে বলে জানান সালমা।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ২৫ জানুয়ারি সালমা ও শিবলী সাদিক বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। স্নেহা নামে তাদের সাত বছরের কন্যাসন্তান রয়েছে। সালমার বাড়ি কুষ্টিয়ায়।

Loading...