সংবাদ শিরোনাম
স্কুলছাত্রী প্রেমিকাকে বেড়াতে নিয়ে বন্ধুকে সাথে করে শিক্ষকের গণধর্ষণ! | আজ ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ২ ফ্লাইওভার ৪ আন্ডারপাস উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী | মাদ্রাসায় যৌন হয়রানি রোধে নারী মেন্টর রাখার সিদ্ধান্ত | ‘নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে রাজনীতি করবে জাসদ’- ইনু | টাঙ্গাইলে পুলিশি অভিযানে এক ব্যক্তির মৃত্যু ! সড়কে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ | ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশটাকে অনেক উচ্চতায় নিয়েছে’- কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক | ছাত্রলীগের নিজস্ব নিউজপোর্টালের যাত্রা শুরু | মোদি ও অমিত শাহকে অভিনন্দন জানালেন ড. কামাল | কার্ডিফে টাইগারদের জন্য খুদে ভক্তদের উন্মাদনা (ভিডিওসহ) | অনুশীলনের ফাঁকে মাহমুদউল্লাহর ইমামতিতে ‘জুমার নামাজ’ আদায় করলো টাইগাররা |
  • আজ ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিক্ষার্থীদের লোভ দেখিয়ে পথশিশুদের জন্য অর্থ সংগ্রহে নামাচ্ছে একটি প্রতারক চক্র!

৪:৩১ অপরাহ্ণ | রবিবার, মে ৫, ২০১৯ আলোচিত

জাবি প্রতিনিধি :: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে ভূয়া পরিচয়ে পথশিশুদের জন্য অর্থ সংগ্রহকালে এক তরুণীসহ তিনজনকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

আটককৃতরা হল- সরকারি বাঙলা কলেজের বাংলা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র মুহাম্মাদ হাসান (২৩), তরুণী ডেইরী ফার্ম স্কুলের (উন্মুক্ত) নবম শ্রেণীর ছাত্রী এবং খিলগাও মডেল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করা অমিত সরকার (২০)।

শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে অর্থ সংগ্রহকালে শিক্ষার্থীদের হাতে আটক হন তারা। পরে তাদের প্রশাসনের কাছে সোপর্দ করা হয়। এরপর তাদের থানায় দেয়া হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শনিবার দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের (ডেইরি গেট) বাইরে ‘মনি মুক্তা স্বেচ্ছাসেবক ফাউন্ডেশন’ এর নামে পথ শিশুদের সাহায্য করার উদ্দেশ্যে টাকা সংগ্রহকালে উপস্থিত কয়েকজন শিক্ষার্থীর সন্দেহ হয়। পরে তাদের কাছে টাকা সংগ্রহ ও ফাউন্ডেশনের পরিচয় পত্র কিংবা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা দেখাতে ব্যর্থ হয়। খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা শাখার কর্মকর্তারা তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা অফিসে নিয়ে আসেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা জানান, ‘মনি মুক্তা ফাউন্ডেশন’র পরিচালক মাহমুদ মুক্তার তাদেরকে এ কাজে পাঠিয়েছে। এছাড়া তারা আর কিছুই জানেন না। এসময় তাদের কাছে ‘মনি মুক্তা ফাউন্ডেশন’ পরিচালক মাহমুদ মুক্তার এবং ‘স্বপ্নের পথিক ফাউন্ডেশন’ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফা জামান মিথির নাম ও মোবাইল নম্বর সম্বলিত একটি কম্পিউটার কম্পোজ করা কাগজ পাওয়া যায়।

আটকৃতরা জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমাদেরকে গতকাল রাজধানীর তিতুমীর কলেজে ডেকে মাহমুদ মুক্তার এই কাজ দিয়েছেন। রাতে আমাদের হোয়াটস অ্যাপের মাধ্যমে এই কাগজ পাঠানো হয় এবং অর্থ সংগ্রহ করতে বলা হয়। বিনিময়ে আমাদেরকে আগামীকাল অর্থ, খাবার এবং পোশাক দেওয়া হবে।

এদিকে মাহমুদ মুক্তারের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন এবং ফোন বন্ধ করে রাখেন।

অপরদিকে আরিফা জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনিও বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, আমি আমাদের ফাউন্ডেশনের নামে কাউকে অর্থ সংগ্রহ কিংবা এ ধরনের কোনো কাজে পাঠাইনি।

প্রসঙ্গত, রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায়শই বিভিন্ন বিষয়ে সহযোগিতা চেয়ে তিন-চারজনের গ্রুপ খালি বাক্র নিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এই প্রান্ত থেকে ওই প্রান্ত ছুটে বেড়ায়। এদের অধিকাংশই ভাল কিছু করার প্রত্যয় কিংবা অসহায়দের পাশে থাকার জন্যই এই মহৎকাজ করে। গুটিকয়েক প্রতারক এই মহৎ উদ্যোগের সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে নিজেরা লাভবান হচ্ছে।