সংবাদ শিরোনাম
স্কুলছাত্রী প্রেমিকাকে বেড়াতে নিয়ে বন্ধুকে সাথে করে শিক্ষকের গণধর্ষণ! | আজ ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ২ ফ্লাইওভার ৪ আন্ডারপাস উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী | মাদ্রাসায় যৌন হয়রানি রোধে নারী মেন্টর রাখার সিদ্ধান্ত | ‘নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে রাজনীতি করবে জাসদ’- ইনু | টাঙ্গাইলে পুলিশি অভিযানে এক ব্যক্তির মৃত্যু ! সড়কে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ | ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশটাকে অনেক উচ্চতায় নিয়েছে’- কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক | ছাত্রলীগের নিজস্ব নিউজপোর্টালের যাত্রা শুরু | মোদি ও অমিত শাহকে অভিনন্দন জানালেন ড. কামাল | কার্ডিফে টাইগারদের জন্য খুদে ভক্তদের উন্মাদনা (ভিডিওসহ) | অনুশীলনের ফাঁকে মাহমুদউল্লাহর ইমামতিতে ‘জুমার নামাজ’ আদায় করলো টাইগাররা |
  • আজ ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

২০০ হুজুরকে শ্রীলংকা ছাড়ার নির্দেশ

১:৪১ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, মে ৭, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইস্টার সানডে’র দিন একের পর এক বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে শ্রীলঙ্কা। পরপর বিস্ফোরণে রীতিমত তীব্র চাঞ্চল্য তৈরি হয় গোটা দেশজুড়ে। কলম্বোর ইতিহাসে সবচেয়ে বড় হামলা ছিল এটাই।

কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই একের পর এক বিস্ফোরণ। কেঁপে ওঠে গোটা দেশের ভীত। নড়ে যায় সে দেশের সরকারও। এই অবস্থায় রীতিমত উত্তাল লঙ্কান সরকার।

আগামীদিনে যাতে এমন ঘটনা আর না ঘটে সেদিকে বিশেষ নজর রাখতে ইতোমধ্যে শুরু করে দিয়েছে দেশটির সরকার। আর তার প্রাথমিক ধাপ হিসাবে ৬০০ বিদেশি মুসলমানকে দেশ থেকে ফেরত পাঠাল শ্রীলঙ্কা সরকার। যাদের মধ্যে প্রায় ২০০ জন ইসলামিক প্রচারক।

লঙ্কান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বজিরা আবেওয়ার্দেনা জানিয়েছেন, দেশ ছেড়ে বেরিয়ে যেতে বলা এসব ধর্ম যাজকদের বৈধ ভাবেই দেশে প্রবেশ করানো হয়। কিন্তু বিস্ফোরণের পর তাদের ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে দেখা যায় অনেকেরই ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও তারা থেকে গিয়েছেন। তাই জরিমানা ধার্য করে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

তিনি জানান, দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের ভিসা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখে ধর্মীয় প্রচারকদের ভিসা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে আরও কঠোর নিয়মের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বর্তমানে গোটা শ্রীলঙ্কা জুড়েই জরুরি অবস্থা জারি রয়েছে। কোনও সন্দেহভাজন ব্যক্তি দেখলেই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সতর্ক করা হয়েছে দেশের তিন বাহিনীকে।

গেল ২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডের প্রার্থনার সময় গির্জা, অভিজাত হোটেল ও কলম্বোর পার্শ্ববর্তী এলাকায় মোট আট জায়গায় সিরিজ বোমা হামলা চালানো হয়। এ হামলায় এ পর্যন্ত কমপক্ষে ২৫৩ নিহত হয়। হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট-(আইএস) ও ন্যাশনাল তওহিদ জামাত-(এনটিজে)।