সংবাদ শিরোনাম
বঙ্গবন্ধু-প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর: ফাইনের পর সুব্রত গ্রেপ্তার | হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের খোঁজ-খবর নিলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ | পুরুষদের নানাভাবে নির্যাতন করছে নারীরা: হিরো আলম | রাহুল গান্ধীকে ঢুকতে দেয়া হয়নি কাশ্মীরে, বিমানবন্দর থেকেই ফেরত | রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করাই উত্তম: তাজুল ইসলাম | দিনে দুপুরে গুলশানের কমিউনিটি সেন্টারে ছাত্রলীগের হামলা (ভিডিও) | ৬ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী | ফরিদপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১, আহত ২৫ | বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর: ছাত্রলীগ নেতা ফাইন গ্রেফতার | মিরপুরে ফুটপাত দখল করে চলছে রমরমা বাণিজ্য |
  • আজ ৯ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ছেলের সামনেই স্ত্রীকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারল স্বামী, বাঁচাতে গিয়ে সন্তানেরও মৃত্যু!

১২:১৬ অপরাহ্ণ | বুধবার, মে ৮, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: স্বামী-স্ত্রীর নিত্য অশান্তি। শেষপর্যন্ত ছেলের সামনেই স্ত্রীকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারল স্বামী! মা-কে বাঁচাতে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গিয়েছে ওই দম্পতির ছোট ছেলে। এমনকি, ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে অভিযুক্ত নিজেও অগ্নিদগ্ধ হয়ে ভর্তি হাসপাতালে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ভারতের কলকাতার আলিপুরদুয়ারের কুমারগ্রামে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

কলকাতার সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, আলিপুরদুয়ার জেলার কুমারগ্রাম ব্লকের রাধানগর গ্রামে স্ত্রী ও দুই ছেলেকে নিয়ে থাকে সোনাবন্ধু বর্মন ওরফে নেশা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, সোমবার রাতে স্ত্রী মিনতির সঙ্গে তুমুল ঝগড়া শুরু হয় সোনাবন্ধুর। রাগের মাথায় স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় সে।

চোখের সামনে মাকে জ্বলতে দেখে ওই মহিলাকে জাপটে ধরে দম্পতির ছোট ছেলে আকাশ। ছেলেকে বাঁচানোর চেষ্টা করে নেশা। এতে বাবা ও ছেলে দু’জনেই অগ্নিদগ্ধ হয়। এদিকে চিত্‍কার শুনে ততক্ষণে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছেন প্রতিবেশীরা।

নেশা, তার স্ত্রী মিনতি ও ছেলে আকাশকে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় কামাখ্যাগুড়ি হাসপাতালে। পরে তিনজনকেই স্থানান্তরিত করা হয় আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে। সেখানে মৃত্যু হয় মা ও ছেলের। আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে চিকিত্‍সা চলছে সোনাবন্ধু বর্মন ওরফে নেশার। ঘটনার সময়ে বাড়িতেই ছিল সোনাবন্ধু ও মিনতির বড় ছেলেও। তার অবশ্য কিছু হয়নি।

জানা গেছে, মিনতি বর্মনের বাবার বাড়ি কোচবিহারের তুফানগঞ্জের বক্সিরহাটে। খবর পেয়ে সোমবার রাতে কুমারগ্রামে যান তার বাবার বাড়ির লোকেরা। সোনাবন্ধু বর্মন ওরফে নেশার বিরুদ্ধে থানায় এফআইআর করেছেন তাঁরা। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।