রোজা রাখছেন জেলের ১৫০ হিন্দু কয়েদি

২:৪২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, মে ১৪, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- পবিত্র রমজান মাস শুরু হয়েছে। যেকোনো পরিস্থিতিতেই মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ রোজা রাখার চেষ্টা করে। কারাগারেও তার ব্যতিক্রম নয়। কারাগারে মুসলমানরা রোজা রাখছেন, তাদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করতে হিন্দুরাও পালন করছেন রোজা।

জেলে বন্দি মুসলিম বন্ধুদের সম্মানে ভারতের তিহার জেলের অন্তত দেড়শ’ কারাবন্দি নিয়মিত রোজা রাখছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় হিন্দুস্তান টাইমস পত্রিকা।

সেখানকার কারারক্ষীদের বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানায়, এ বছর মুসলিম সঙ্গীদের সম্মানে হিন্দু কয়েদিদের রোজা রাখার সংখ্যা অনেক বেড়েছে। এবার অন্তত ১৫০ জন হিন্দু কয়েদি নিয়মিত রোজা রাখছেন। গতবছর এই সংখ্যা ছিলো ৫৯।

কারাগারের এক মুখপাত্র বলেন, ‘তিহারের বিভিন্ন জেলে সবমিলিয়ে কারাবন্দির রয়েছে ১৬,৬৬৫ জন। এদের মধ্যে হিন্দু-মুসলিম মিলিয়ে কমপক্ষে ২,৬৫৮ জনই নিয়মিত রোজা রাখছেন। এবার রোজাদার কয়েদিরে সংখ্রা অন্যান্য বারের তুলনায় অন্তত তিন গুণ বেড়েছে।

চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে জেলের হিন্দু কয়েদিরা জেল সুপারিনটেনডেন্টের সঙ্গে দেখা করে রোজা রাখবেন বলে জানিয়ে দেন। এরপরই এসব রোজাদার কয়েদিদের জন্য বিশেষ আয়োজন করেন জেল কর্তৃপক্ষ।

এ প্রসঙ্গে এক জেল কর্মকর্তা বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা রোজার রাখার পক্ষে নানা কারণ তুলে ধরেছেন। তবে বেশিরভাগই জানিয়েছেন, তারা মুসলিম বন্দিদের সম্মানে রোজা পালন করছেন। তবে জেলে আসার পর তারা ধর্মান্তরিত হয়েছেন কিনা সে বিষয়টি কেউই স্বীকার করতে চাননি।

সাধারণত কারাবন্দিদের ৮০-৯০ শতাংশই জেলে ধর্মীয় অনুশাসন পুরোপুরি মেনে চলেন। তাদের কেউ কেউ মনে করেন যে, প্রার্থণা করলে তারা দ্রুত ছাড়া পেতে পারবে।

তিহার জেলে শুধু যে হিন্দুরাই মুসলিম বন্দিদের দেখাদেখি রোজা পালন করেন করেন এমন নয়, মুসলিম কয়েদিরাও তাদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করে উপোস করেন। চলতি বছর নয় দিন ব্যাপী নভোরাত্রির উৎসবে হিন্দুদের সঙ্গে বহু মুসলিম কয়েদিও উপোস করেছিলেন। আর এ ধরনের ধর্মীয় সম্প্রতি কেবল যে তিহার জেলেই রয়েছে এমন নয়, ভারতের অন্যান্য জেলেও এমনটা দেখা যায়।