• আজ ৩১শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরে কোনো অনুভূতি জানালেন না মাশরাফি

১০:৫৮ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, মে ১৯, ২০১৯ খেলা

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- বিশ্বকাপ মাঠে গড়াতে আর মাত্র ১১ দিন বাকি। এর আগে ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হয়ে আত্মবিশ্বাস নিয়ে ডাবলিন থেকে লন্ডনে পৌঁছেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। তবে দেশে ফিরেছেন  বিন মুর্তজা। সঙ্গে নিয়ে এসেছেন ঐতিহাসিক শিরোপা।

শনিবার রাত ১১টা ২০ মিনিটের দিকে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন মাশরাফি। ফেরার সময় তার সফরসঙ্গী ছিলেন টুর্নামেন্টের ম্যানেজার ও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, ত্রিদেশীয় সিরিজে ডাক পাওয়া তাসকিন আহমেদ, নাঈম হাসান ও ইয়াসির আলী রাব্বি। অপর সদস্য ফরহাদ রেজা ও দলের নিরাপত্তার অংশ হিসেবে যাওয়া বিসিবির নিরাপত্তা প্রধান মেজর (অব.) হোসেন ইমামের ফেরার কথা আজ রোববার।

এমিরেটস এয়ারলাইন্সযোগে আয়ারল্যান্ড থেকে দুবাই হয়ে মাশরাফির হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার কথা ছিল শনিবার রাত সোয়া ১১টায়। কিন্তু নামলেন ৫ মিনিট পরে। তাকে অভ্যর্থনা জানাতে ততক্ষণে বিমানবন্দরে হাজির হন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন, বিসিবি’র মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জালাল ইউনুস, গ্রাউন্ডস কমিটির প্রধান মাহবুব আনাম ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিকসহ বিসিবি’র আরও বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা। সংবাদমাধ্যমকর্মীরা তো ছিলেনই।

১১টা ২০ মিনিটে অবতরণের পর ভিআইপি লাউঞ্জ দিয়ে বেরিয়ে আসার সময় তাকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। যেহেতু পুরো দল এক সঙ্গে নেই তাই অভ্যর্থনাটিও ছিল সাদামাটা। তা না হলে হয়ত অভাবনীয় অভ্যর্থনাতেই সিক্ত হতেন স্টিভ রোডস শিষ্যরা। কারণটিও যে অমূলক নয়। আইরিশদের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে উড়িয়ে দিয়ে দেশের ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথমবারের মত কোনো বহুজাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতেছে মাশরাফি নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ।

যা হোক, অভ্যর্থনা পর্ব শেষে চামেলি লাউঞ্জে সংবাদ মাধ্যমের সামনে টাইগার দলপতি মুখোমুখি হলেন সত্যি কিন্তু ঐতিহাসিক জয়ের সেই গল্প শোনাতে চাইলেন না। পেছনে কারণ একটিই, টুর্নামেন্টে পারফর্ম করা প্রিয় সতীর্থরা নেই। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে ছয়-ছয়বারের অধরা শিরোপা ধরা দিয়েছে তাদের রেখে সংবাদ মাধ্যমের সামনে কথা বলা তার কাছে যৌক্তিক মনে হয়নি।

‘আপনারা কষ্ট করে এসেছেন তাই ধন্যবাদ। আমি এখন আপনাদের সঙ্গে খেলা নিয়ে কথা বলব না। কারণ পুরো দল আসেনি। যারা খেলেছে তারাই আপনাদের সামনে থাকার প্রধান দাবিদার। দলের পক্ষ থেকে মনে হয়, যারা পারফর্ম করেছে, মাঠে কষ্ট করেছে তাদের রেখে কথা বলা ঠিক হবে না। এটি পুরোটাই দলীয় অর্জন। তাছাড়া আমি এসেছি ছুটিতে। চার দিনের ছুটি যে যার মতো কাটাচ্ছে। পুরো দল একসঙ্গে থাকলে আমার কথা বলা ঠিক হত। ওরা না থাকলে খেলা নিয়ে আমার কথা বলতে ভালো লাগছে না। ওরা থাকলে ভালো লাগত।’

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ-উইন্ডিজ ফাইনালের মধ্য দিয়ে পর্দা নেমেছে আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের। গত ১৭ মে শুক্রবার ডাবলিনের মালাহাইড ক্রিকেট ক্লাব গ্রাউন্ডে উইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বহুজাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জেতে বাংলাদেশ। শিরোপা নিয়ে শনিবার রাতে দেশে ফিরেছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাসহ চার ক্রিকেটার।

এনিয়ে গত দশ বছরে বহুজাতিক টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ ৭টি ফাইনাল খেলেছে। সেখানে সাকিব, আশরাফুল, মুশফিকের অধিনায়কত্বে ট্রফি জিততে না পারলেও মাশরাফির চতুর্থবারের চেষ্টায় তারা স্বাদ পেলো বহুল আকাঙ্ক্ষিত এই ট্রফির।