সংবাদ শিরোনাম
চীন সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী | কলেজ ও মাদ্রাসার বইয়ের বিপুল পরিমাণ নকল কপি জব্দ! | বাংলাদেশি যুবককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে খুন করলো এক ভারতীয় নারী | নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখল পাকিস্তান | ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমসে রাবির শিরিন ও যবিপ্রবির উজ্জ্বল | সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যুদ্ধ করেও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না তিনি…… | স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা | কিশোরগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার, অবৈধ পাচার বিরোধী র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত | ঠাকুরগাঁওয়ে কলেজছাত্রী ধর্ষনের শিকার, আটক-১ | লক্ষ্মীপুরে ইয়াবা বিক্রয়ের অভিযোগে নারীসহ আটক-২ |
  • আজ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মহানবী (সাঃ) কে কটুক্তি করে বহিষ্কার হলো কুবির সেই শিক্ষার্থী

১:৪৭ অপরাহ্ণ | সোমবার, মে ২০, ২০১৯ শিক্ষাঙ্গন, স্পট লাইট

কুবি প্রতিনিধি :: অবশেষে শাস্তি পেল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম ও মহানবীকে (স.) নিয়ে কটূক্তি করার দায়ে অভিযুক্ত কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) সেই শিক্ষার্থী। তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

অফিস আদেশে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম ও নবীকে নিয়ে অবমাননামূলক আপত্তিকর মন্তব্য করায় আজ (রোববার) থেকে জয়দেব চন্দ্রশীলের সাময়িক বহিষ্কার কার্যকর হবে।

এর আগে শনিবার (১৮ মে) যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম ‘ভয়েস অব আমেরিকা’র ফেসবুক পেজের একটি ভিডিও বার্তায় ধর্ম এবং মহানবীকে নিয়ে কটুক্তি করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থী। পরবর্তীতে ধর্মীয় হিংসা ও বিদ্বেষপূর্ণ এই মন্তব্য স্ক্রিনশটের মাধ্যমে ফেসবুকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গ্রুপে ছড়িয়ে পড়লে সেটা তাদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার করে।

পরে জয়দেব সেটি মুছে ফেলেন এবং এরকম মন্তব্যের পুনরাবৃত্তি হবে না বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রুপে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। তবে শিক্ষার্থীরা তাকে ক্ষমা না করে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে মামলা ও প্রশাসনিক শাস্তির দাবি জানান। রোববার সকালে শিক্ষার্থী এবং স্থানীয়রা জয়কে ঠাকুরপাড়ার একটি মেস থেকে আটক করে কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানায় সোপর্দ করে।

এদিকে অভিযুক্ত জয়দেবের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানায় তারা। তারই আলোকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এই পদক্ষেপ নেই।