• আজ ৩১শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

এটা কি আত্মহত্যা!

২:৪০ অপরাহ্ণ | সোমবার, মে ২০, ২০১৯ অপরাধ

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি :: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে রোকেয়া বেগম (৩৫) নামে মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারীর গাছে ফাঁস লাগিয়ে রাখা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার বাড়ির পাশে একটি বাগানের আম গাছের ডালার সাথে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় তার মরদেহটি পাওয়া যায়। বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

রোকেয়া উপজেলার রশুনিয়া ইউনিয়নের দানিয়াপাড়া গ্রামের কামাল হোসেনের স্ত্রী ও উপজেলার মালখানগর ইউনিয়নের ফেগুনাসার গ্রামের সিদ্দিক মিস্ত্রীর মেয়ে।

স্থানীয়রা জানায়, ১২ টার দিকে পুকুরে গোসল করে বাড়ি ফেরার কথা থাকলেও ফেরেনি রোকেয়া। এরপর ওই আম গাছের ডালের সাথে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় মরদেহটি দেখতে পায় স্থানীয়রা। মরদেহের গলায় লাগানো ওড়না গাছের ডালে বাঁধা থাকলেও পা ঝুলে ছিল মাটিতে। এ ঘটনাকে আত্মহত্যা বলতে নারাজ স্থানীয়রা।

রোকেয়ার স্বজনরা জানান, রবিবার সকালেই সে বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি এসেছিল। ১০/১২ বছর যাবৎ সে মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। অনেক চিকিৎসার পরও পুরোপুরি ভাল হয় নাই। ১৫ বছর আগে বিয়ে হয়, তাদের কোন সন্তান নেই। তার স্বামী উপজেলা মোড়ে একজন চা দোকানদার। তাদের অভিযোগ, রোকেয়াকে হত্যা করে মরদেহ গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

সিরাজদিখান থানার উপ পরিদর্শক নাজমুর হাসান জানান, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং একটি অপমৃত্যু মামলার প্রস্তুতি চলছে। বিস্তারিত ময়না তদন্তের পর বলা যাবে কিভাবে মৃত্যু হল, তদন্ত চলছে।