ভুল ইনজেকশন পুশ: এখনও কোমায় সেই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী

১১:৪৬ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, মে ২২, ২০১৯ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মেহেদী হাসানাত, ষ্টাফ রিপোর্টার, গোপালগঞ্জ- গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মরিয়ম সুলতানা মুন্নির অবস্থার উন্নতি হয়নি। জীবন-মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে খুলনা আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে সে।

গতকাল মঙ্গলবার গোপালগঞ্জ ২৫০-শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নার্সের দেয়া ভূল ইনজেকশন পুশ করায় তার এই অবস্থা হয়েছে। এ ব্যাপারে ওই ছাত্রীর চাচা জাকির হোসেন বিশ্বাস বাদী হয়ে ডাঃ তপন কুমার মন্ডল, নার্স শাহানাজ ও কুহেলিকাকে অভিযুক্ত করে সদর থানায় রাতেই একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

ভূল ইনজেকশন পুশের শিকার মরিয়ম সুলতানা মুন্নি গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলিয়া গ্রামের মোঃ মোশারফ হোসেন বিশ্বাসের মেয়ে।

পিত্ত থলির পাথর জনিত কারণে মুন্নিকে ডাক্তার তপন কুমার মন্ডলের কাছে দেখানো হয়। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ওই শিক্ষার্থীর অপারেশন করার দিন ধার্য ছিল। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে হাসপাতারে নার্স ওই ছাত্রিকে গ্যাসের ইনজেকশনের পরিবর্তে ভূল করে অজ্ঞান করার ইনজেকশন দিয়ে দেয়। এসময় ওই শিক্ষার্থী জ্ঞান হরিয়ে ফেলেন। পরে তাকে খুলনা আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে গোপালগঞ্জ ২৫০শয্যা হাসপাতালের পরিচালক ডা.ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, এ ব্যাপারে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী শনিবার কমিটি তাদের প্রতিবেদন দাখিল করবেন। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।