• আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ধানক্ষেত পুড়ানোর একটি ভুয়া ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে ফেসবুকে

৩:২২ অপরাহ্ণ | বুধবার, মে ২২, ২০১৯ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- ধানের দাম কম ও দিনমজুর না পাওয়ায় টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে এক কৃষকের পাকা ধানক্ষেতে আগুন লাগানোর ঘটনা দেশজুড়ে যখন আলোচিত, ঠিক এমন সময় একটি ভুয়া ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

সেখানে বলা হচ্ছে, রাজশাহী কিংবা বগুরায় ধানের ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় নিজের খেতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে কৃষকরা। অনেকেই ভিডিওটি শেয়ার করে সরকারের বিষোদগার করছেন। আবার কেউ কেউ তার স্টিল ছবিও শেয়ার করছেন।

প্রকৃতপক্ষে সেটি আসলে বাংলাদেশের কোনো ঘটনাই নয়, আর এটি ধান ক্ষেতও নয়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত বছরের ভারতের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশীহারী থানার ঘটনা এটি।

ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সেখানে ধানক্ষেতের মতো দেখতে বড় একটি জমিতে ধাউ ধাউ করে আগুন জ্বলছে। কালো ধোঁয়া কুণ্ডলী পাকিয়ে পুরো এলাকা ছেয়ে যাচ্ছে। আশ-পাশের লোকজন তাকিয়ে তাকিয়ে দেখছে।

ফেসবুকে একজন লিখেছেন, ‘রাজশাহীতে ধানের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় নিজের খেতে আগুন লাগিয়ে দেয় কৃষকরা। এতে হাজার বিঘার ধান পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

‘আরেকজন লিখেছেন, ‘কতটা অসহায়, কতটা কষ্ট হলে থাকলে মানুষ এমনটা করতে পারে….নিজের ফলানো ধান ক্ষেত আগুন দিয়েছে…।’

এদিকে “ধান ক্ষেতে আগুন” বলে যে ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে সেটি আসলে কোনো ধানক্ষেতই নয়। আর এটি বাংলাদেশেরও ঘটনা নয়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এটি ভারতের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশীহারী থানার আমরাকুড়ি গ্রামের গম ক্ষেতের আগুনের ভিডিও।

২০১৮ সালের এপ্রিলে ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, এক চাষি পরবর্তী চাষের জন্য নিজের জমিতে থাকা গমের খড়ে আগুন লাগিয়ে দেন। কিন্তু সেই আগুন ধিরে ধিরে আশেপাশের জমিতে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে গ্রামের মানুষরা ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করে। কিন্তু কোন লাভ হয়নি। যার কারণে খবর দেওয়া হয় দমকল বিভাগে। পরে দমকলের ইঞ্জিন এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে। এই ঘটনায় প্রায় ৫০ বিঘা জমির ফসল নষ্ট হয়ে যায়।

ভারতের গম ক্ষেতের আগুনের সেই ভিডিও দেখুন এখানে-