• আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বীরত্বের পুরস্কার পেলেন ওসি কামাল হোসেন ভূঁইয়া

২:৩৭ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, মে ২৪, ২০১৯ ঢাকা
BIR

রাজু আহমেদ, ষ্টাফ রিপোর্টার- রাজবাড়ী,ফরিদপুর ও আশপাশের অঞ্চলের নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী দলের ৩৩ জন সক্রিয় সদস্য ১৮টি আগ্নেয়াস্ত ও গুলিসহ আত্মসমর্পনে ভুমিকা রাখায় রাজবাড়ী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি কামাল হোসেন ভুঁইয়াকে বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে সম্মান সূচক সনদপত্র প্রদান করা হয়েছে।

ডিআইজি (প্রশাসন) সালেহ মহম্মদ তানভীর, এডিশনাল ডিআইজি আসাদুজ্জামান, রাজবাড়ীর এসপি আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম/পিপিএমসহ ঢাকা বিভাগের অন্যান্য জেলার পুলিশ সুপারগণের উপস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি’র কার্যালয়ে ইন্সপেক্টর কামাল হোসেন ভুঁইয়াকে ‘সেরা সমন্বয়ক’ হিসেবে এ সনদপত্র তুলে দেয়া হয়।

জানা গেছে, রাজবাড়ী, পাবনা ও ফরিদপুর জেলার চরমপন্থীদের অভয়াশ্রম আধ্যাষিত চরাঞ্চলের কিছু দূর্গম এলাকার লাখো নিরীহ মানুষ সবসময়ই এক অজানা আতঙ্কে বাস করতো। তাছাড়া এই এলাকার নদীপথ গুলোতে সবসময়ই চরমপন্থীদের অবাধ বিচরণ, চাঁদাবাজি, ডাকাতি নিত্যনৈমত্তিক ব্যপার হয়ে দাড়িয়েছিলো। সম্প্রতি বিভিন্ন সময়ে পুলিশ ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হন উল্লেখযোগ্য সংখ্যক চিহ্নিত চরমপন্থী নেতা। উদ্ধার করা হয় বেশ কিছু আগ্নেয়াস্ত্র। চরমপন্থী নেতাদের এমন করুন পরিনতি ও নির্মম মৃত্যু দেখে কোণঠাসা হয়ে পড়ে তাদের অনুসারীরা।

এদিকে নিজেদেরকে সংশোধনের সুযোগ দিতে সরকারের ঘোষনা অনুযায়ী তাদেরকে আত্মসমর্পণের পথ খুলে দেয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় রাজবাড়ী ও ফরিদপুরের ৩৩ জন সক্রিয় চরমপন্থী দলের সদস্যকে আত্মসমর্পণে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছেন ওসি কামাল হোসেন ভূঁইয়া। চরমপন্থীদের এমন আত্মসমর্পণে জেলা গুলোর লাখো মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরিয়ে দিতে পেরেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত ৯ এপ্রিল পাবনার শহীদ এ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিন স্টেডিয়ামে বিভিন্ন জেলার ৬ শতাধিক চরমপন্থী দলের সদস্য মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান এমপি’র কাছে আত্মসমর্পন করে।