সংবাদ শিরোনাম
চীন সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী | কলেজ ও মাদ্রাসার বইয়ের বিপুল পরিমাণ নকল কপি জব্দ! | বাংলাদেশি যুবককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে খুন করলো এক ভারতীয় নারী | নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখল পাকিস্তান | ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমসে রাবির শিরিন ও যবিপ্রবির উজ্জ্বল | সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যুদ্ধ করেও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না তিনি…… | স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা | কিশোরগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার, অবৈধ পাচার বিরোধী র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত | ঠাকুরগাঁওয়ে কলেজছাত্রী ধর্ষনের শিকার, আটক-১ | লক্ষ্মীপুরে ইয়াবা বিক্রয়ের অভিযোগে নারীসহ আটক-২ |
  • আজ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভারতে নির্বাচিত ২৩৩ জন এমপি ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধ মামলার আসামি

৩:১২ অপরাহ্ণ | রবিবার, মে ২৬, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ভারতের ১৭তম লোকসভায় নির্বাচিত ৫৪২ সদস্যের মধ্যে ২৩৩ জনের বিরুদ্ধেই রয়েছে অপরাধ মামলা। কারো কারো বিরুদ্ধে রয়েছে ধর্ষণ, হত্যা ও সন্ত্রাসবাদের মতো গুরুতর মামলা।

শনিবার (২৫ মে) অলাভজনক নির্বাচন বিষয়ক পর্যবেক্ষণ প্রতিষ্ঠান এসোসিয়েশন অব ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মসের (এডিআর) এক প্রতিবেদন এ তথ্য ওঠে এসেছে।

খবর বার্তা সংস্থা এএফপির সংবাদে বলা হয়েছে, লোকসভায় ৫৪৩ জন বিজয়ী এমপিদের মধ্যে ২৩৩ জন এমপির বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে।। ২০০৯ সাল থেকে ঘোষিত ফৌজদারি মামলায় এমপিদের সংখ্যা ৪৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

২৩৩ এমপি গণহত্যা, গৃহদ্রব্য, ডাকাতি, ফৌজদারি ভীতি, ইত্যাদি সম্পর্কিত মামলা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। সেই সাথে কয়েকে জনের নামে, ধর্ষণ, হত্যার চেষ্টা, অপহরণ, নারীর বিরুদ্ধে অপরাধের ইত্যাদিসহ গুরুতর ফৌজদারি মামলাও রয়েছে।

এডিআর জানিয়েছে, ভারতীয় পার্লামেন্টে অপরাধীদের তালিকা ক্রমে বাড়ছে। দেশটির পার্লামেন্টের বিরোধী দলীয় এক সদস্যের বিরুদ্ধে নরহত্যা ও দস্যুতাসহ ২০৪টি মামলা রয়েছে।

লোকসভায় বিজয়ী ৫৩৯ জনের ওপর জরিপ চালিয়েছে এডিআর। সংস্থাটি বলছে, ২০০৪ সালে তাদের জরিপ শুরু হওয়ার পর ফৌজদারি অপরাধীদের পার্লামেন্ট সদস্য হওয়ার সংখ্যা এটাই সর্বোচ্চ।

প্রতিবেদন বলছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিজেপি থেকে জয়ী ৩০৩ প্রার্থীর মধ্যে ১১৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। তাদের মধ্যে একজন সন্ত্রাসবাদের দায়ে অভিযুক্ত।

কংগ্রেস থেকে নির্বাচিত ৫২ এমপির মধ্যে ২৯ জন অপরাধী। কেরালার ইডুক্কি থেকে নির্বাচিত হয়েছেন দীন কুরিয়াকোস। তার বিরুদ্ধে ২০৪টি ফৌজদারি অপরাধের মামলা রয়েছে।

এডিআর বলছে, গত এক দশকে নির্বাচিত পার্লামেন্ট সদস্যদের মধ্যে গুরুতর অপরাধে অভিযুক্ত আসামিদের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। তাদের মধ্যে ১১ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা, ২০ জনের বিরুদ্ধ হত্যাচেষ্টা ও তিনজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে।

বিজেপির এমপি প্রজ্ঞা ঠাকুরের বিরুদ্ধে মসজিদে হামলা চালিয়ে ছয়জনকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে। যদিও নিজের বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করছেন তিনি।