সংবাদ শিরোনাম
চীন সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী | কলেজ ও মাদ্রাসার বইয়ের বিপুল পরিমাণ নকল কপি জব্দ! | বাংলাদেশি যুবককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে খুন করলো এক ভারতীয় নারী | নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখল পাকিস্তান | ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমসে রাবির শিরিন ও যবিপ্রবির উজ্জ্বল | সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যুদ্ধ করেও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না তিনি…… | স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা | কিশোরগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার, অবৈধ পাচার বিরোধী র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত | ঠাকুরগাঁওয়ে কলেজছাত্রী ধর্ষনের শিকার, আটক-১ | লক্ষ্মীপুরে ইয়াবা বিক্রয়ের অভিযোগে নারীসহ আটক-২ |
  • আজ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ক্লিনিকের দরজা বন্ধ করে স্বামী-স্ত্রীকে পেটালেন ‘ডাক্তার’!

১০:২৮ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, মে ২৮, ২০১৯ দেশের খবর, বরিশাল

সময়ের কণ্ঠস্বর, বরিশাল- একটি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট হয়েও নিজেকে এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তার পরিচয় দিয়ে আসছিলেন হেদায়েত উল্লাহ (৫৪)।

তিনি গৌরনদী পৌর এলাকায় দীর্ঘ দিন যাবত আনোয়ারা নামে একটি ক্লিনিক পরিচালনা করে আসছেন। রবিবার রাতে এক প্রসূতির অপারেশন করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন ওই ভুয়া ডাক্তার।

সোমবার বিকেলে পুলিশ তাকে বরিশাল চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে আদালত বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করেন।

গৌরনদী মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাহাবুবুর রহমান জানান, বাবুগঞ্জ উপজেলার আগরপুর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট হিসেবে মো. হেদায়েত উল্লাহ কর্মরত আছেন। তার ক্লিনিকে আসা রোগীদের এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তার পরিচয় দিয়ে প্রসূতিসহ অন্য রোগীদের অপারেশন করছিলেন।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, উপজেলার বাঘার গ্রামের বিমল রায় তার সন্তান সম্ভাবা স্ত্রী অনিতা রায়কে রবিবার রাত ১১টা দিকে তিনি আনোয়ারা ক্লিনিকে নিয়ে আসেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসককে খুঁজতে থাকলে হেদায়েত উল্লাহ নিজেকে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে ক্লিনিকে ভর্তি হতে পরামর্শ দেন।

রোগীর স্বজনরা হেদায়েত উল্লাহকে আগে থেকে চেনার কারণে অনিতাকে নিয়ে ক্লিনিক থেকে বের হয়ে অন্য ক্লিনিকে যাওয়ার জন্য চেষ্টা করেন। এ সময় হেদায়েত উল্লাহ ও তার ক্লিনিকের স্টাফরা রোগী ও তার স্বজনদের আটকে দরজা বন্ধ করে দেন। এ নিয়ে রোগীর স্বজনদের সঙ্গে হেদায়েত উল্লাহ ও তার ক্লিনিকের স্টাফদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে রোগী ও তার স্বামীকে মারধর করেন হেদায়েত উল্লাহ ও তার স্টাফরা। পরে একটি কক্ষে রোগী ও তার স্বজনদের আটকে রাখা হয়।

মুঠোফোনে এখবর গৌরনদী থানায় অবহিত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রোগী ও স্বজনদের উদ্ধার এবং অভিযুক্ত কথিত চিকিৎসক হেদায়েত উল্লাহকে আটক করে। পরে রাতেই রোগীর স্বামী বিমল রায় বাদী হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে হেদায়েতকে সোমবার দুপুরে বরিশালের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালতের বিচারক মো. আমিনুল ইসলাম অভিযুক্ত হেদায়েতকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।