খুনী

৭:০১ অপরাহ্ণ | বুধবার, মে ২৯, ২০১৯ সিলেট

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :: হবিগঞ্জ শহরে চাঞ্চল্যকর টমটম চালক তৌহিদুর রহমান সাবাজ (২৬) হত্যা মামলায় আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক লোমহর্ষক জবানবন্দি দিয়েছে ঘাতক বিলাস (২৫)। বিলাস সদর উপজেলার লুকড়া গ্রামের মৃত ছিদ্দিক আলীর পুত্র।

মঙ্গলবার বিকেলে হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলামের আদালতে প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় সে। পরে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রবিউল ইসলাম।

তিনি জানান, আনোয়ারপুর পয়েন্ট এলাকা থেকে ঘাতক বিলাসসহ একদল ছিনতাইকারীরা তার টমটমটি ভাড়ায় যাওয়া কথা বলে ধুলিয়াখাল নসরতপুর রাস্তায় নব-নির্মিত বিজিবি ক্যাম্পের উত্তর পার্শ্বে নিয়ে যায়। পরে তারা সাবাজের হাতে পায়ে ধরে গলায় কাপড় প্যাচাইয়া শ্বাসরোধ করে এবং চাকু দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে হত্যা নিশ্চিত করে।

এক পর্যায়ে তারা সাবাজের টমটমটি নিয়ে যাওয়া চেষ্টা করলে সদর থানার টহলরত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ঘাতক বিলাসকে হাতে নাতে আটক করে। পরে রাস্তার পার্শ্ববর্তী একটি ঝোপঝাড় থেকে সাবাজের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এসময় তাদের ব্যাবহৃত চাকু, মোটর সাইকেল ও টমটমটি উদ্ধার করা হয়।

নিহতের পিতা মাতাব আলী বাদী হয়ে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। মামলাটি তদন্ত করছে সদর থানার এসআই জুয়েল সরকার।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরো জানান, ঘাতক বিলাস আদালতে তার সহযোগীদের নাম প্রকাশ করেছে। তাদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। এদিকে, মঙ্গলবার সকালে সাবাজের হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করে টমটম চালকরা। এসময় এএসপি রবিউল ইসলাম হত্যাকারীদের শাস্তি নিশ্চিত করনের আশ্বাস দিলে টমটম চালকরা ফিরে যায়।